‘মি টু’ আন্দোলনে নাম জড়িয়েছিল পরিচালক সাজিদ খানের। অভিনেত্রী থেকে শুরু করে সাংবাদিক সবাই সাজিদের বিরুদ্ধে যৌন হেনস্তার অভিযোগ এনেছিলেন। ‘মি টু’ মুভমেন্টে যারা সাজিদের বিরুদ্ধে অভিযোগ এনেছিল তারা প্রত্যেকেই শেয়ার করেন তাদের অভিজ্ঞতার কথা। সেই কথা মাথায় রেথে কার্যত বলিউড থেকে নির্বাসনও দেওয়া হয় পরিচালককে।

তবে সাজিদ খানের ‘বিগ বসে’ উপস্থিতি নিয়ে রীতিমতো প্রতিবাদ চলছে গোটা দেশজুড়ে। আর সেই ‘বিগ বস’ বিজেতা গওহর খান এবার সামনে আনলো সাজিদ খান সর্ম্পকিত চাঞ্চল্যকর এক তথ্য।

গওহর খান বলেন, যখন তিনি সাজিদ খানের গার্লফ্রেন্ড ছিলেন তখন সাজিদ খান তাকে বলেছিলেন ‘তার চরিত্র একেবারেই ভালো নয়। মেয়ে দেখলেই নিজেকে সামলাতে পারতেন না। তখন সাজিদের মুখে এ কথা শোনার পর গওহর খান ব্রেকআপের সিদ্ধান্ত নেন।

ব্রেকআপের পর সাজিদ খান প্রকাশ্যে বলেন, ‘সে সময়ে আমার চারিত্রিক দৃঢ়তা একদম ছিল না। নারীদের মন জয় করে তাদের সঙ্গে বিশ্বাসঘাতকতা করতাম। এটাই আমার হবি ছিল।’

শুধু গওহর খানই নয়, সাজিদ খানের বিরুদ্ধে যৌন হেনস্তার অভিযোগ তুলেছিলেন ভোজপুরি সিনেমার নায়িকা রানি চট্টোপাধ্যায়। তার অভিযোগ, সিনেমায় সুযোগ দেওয়ার কথা বলে বাড়িতে ডেকে সাজিদ তার স্তনের মাপ জানতে চেয়েছিল। শুধু তাই নয়, কতবার সহবাস করেছি, সেটাও জানতে চেয়েছিল সাজিদ।

সম্প্রতি সাজিদের বিরুদ্ধে যৌন হেনস্তার আবারও অভিযোগ এনেছেন অভিনেত্রী শার্লিন চোপড়া। তিনি বলেন, তাকে বিশেষ অঙ্গ দেখিয়েছিলেন সাজিদ। এরপর শার্লিন বিগ বসের সঞ্চালক সালমান খানকে সাজিদের পাশে না দাঁড়ানোর অনুরোধ করেন।

ভারতীয় সংবাদমাধ্যম দ্য টাইমস অব ইন্ডিয়া এর এক প্রতিবেদনে জানানো হয়, এই প্রতিবাদের ফলে ‘বিগ বস’ কর্তৃপক্ষ নাকি নড়েচড়ে বসেছেন। বিতর্ক এড়াতে নাকি আগামী সপ্তাহে সাজিদ খানকে নিয়ে বড় সিদ্ধান্ত নিতে চলেছে।

শোনা যাচ্ছে, ‘বিগ বস’ থেকে বেরিয়ে যেতে পারেন সাজিদ। মূলত, বিতর্ক আটকাতেই সাজিদকে বাদ দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেওয়া হচ্ছে। এ নিয়ে নাকি নানা বৈঠকেও বসেছে ‘বিগ বস’ টিম। সেই বৈঠকে ছিলেন সালমান খানও। সাজিদের ওপর সালমানের সমর্থনও নাকি ধোপে টেকেনি।

গত ১ অক্টোবর থেকে শুরু হয়েছে ‘বিগ বস’ শোয়ের নতুন সিজন। সঞ্চালনার দায়িত্ব বলিউডের সুলতান সালমান খান। এই শোয়েই প্রতিযোগী হিসেবে এসেছেন ফারহা খানের ভাই তথা বলিউডের এক সময়ের নামকরা পরিচালক সাজিদ খান। তাতেই বিতর্ক দানা বেঁধেছে। ‘মি টু’ আন্দোলনের পর সাজিদের মতো এমন ব্যক্তিকে কীভাবে বিগ বসে আনা হয়, তা নিয়ে প্রশ্ন উঠছে।

Leave a Reply

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.