Wednesday April14,2021

টুপি ও পাঞ্জাবি পরে কলেজে আসায় সিলেটে দুই প্রভাষকে চাকরি থেকে অব্যাহতি দেওয়ার অভিযোগ উঠেছে।

দুই প্রভাষক হলেন- পদার্থবিদ্যা বিভাগের প্রভাষক আব্দুল হালিম ও আইসিটি বিভাগের প্রভাষক মুজাহিদুল ইসলাম। তারা সিলেটের জালালাবাদ ক্যান্টনমেন্ট পাবলিক স্কুল অ্যান্ড কলেজের প্রভাষক ছিলেন।

এ ঘটনায় শনিবার (৩ এপ্রিল) কলেজের সামনে প্রতিষ্ঠানটির সাবেক শিক্ষার্থীরা মানববন্ধন ও বিক্ষোভ সমাবেশ করেছেন। এ সময় সাধারণ শিক্ষার্থীরাও অবিলম্বে এ আদেশ প্রত্যাহারের জন্য সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের প্রতি জোর দাবি জানিয়েছেন।

তবে কলেজ কর্তৃপক্ষ অব্যাহতির বিষয়টি অস্বীকার করে বলছেন- তাদেরকে অব্যাহতি দেয়া হয়নি। বরং প্রতিষ্ঠানের পোষাকবিধি মানতে না পারলে তারা স্বেচ্ছায় অব্যাহতি নিতে পারবেন- এমনটাই বলা হয়েছে।

কলেজের ভাইস প্রিন্সিপাল আরিফুল ইসলাম রেজা ব্রেকিংনিউকে বলেন, সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল হওয়া বিষয়টি সত্য নয়। প্রভাষক আব্দুল হালিম ও মুজাহিদুল ইসলামের বিষয়ে এখনও চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেয়া হয়নি। তাদের চাকরিচ্যুতও করা হয়নি। গভর্নিং বডির ৫২ তম মিটিংয়ে তাদেরকে ডেকে এনে প্রতিষ্ঠানের পোষাকবিধি মানার জন্য কঠোরভাবে বলা হয়েছে।

তিনি বলেন, ৩১ মার্চের আগে তাদেরকে তিনবার শোকজ পাঠানো হয়। কিন্তু তারা দুজন প্রতিষ্ঠানের পোষাকবিধি মানতে অনীহা প্রকাশ করায় গভর্নিং বডির মিটিংয়ে তাদেরকে ডেকে এনে প্রতিষ্ঠানের পোষাকবিধি না মানলে স্বেচ্ছায় অব্যাহতি নিতে পারেন এমনটি বলা হয়েছে। তবে তাদেরকে চাকরিচ্যুত করা হয়নি।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে প্রভাষক আব্দুল হালিম প্রতিবেদককে জানান, ‘আমি ও প্রভাষক মুজাহিদুল ইসলাম নিয়োগের সময় পাঞ্জাবি-টুপি পরে কলেজে আসার জন্য গভর্নিং বডির কাছে আবেদন করি। তখন আমাদেরকে লিখিতভাবে অনুমতি প্রদান করা হয়। কিন্তু প্রতিষ্ঠানের অধ্যক্ষ লে. কর্নেল মো. কুদ্দুসুর রহমান তিনবার আমাদেরকে নোটিশ প্রদান করেন। সর্বশেষ গত ৩১ মার্চ গভর্নিং বডির বৈঠক ডেকে আমাদেরকে আর কলেজে না আসতে মৌখিকভাবে জানিয়ে দেওয়া হয়েছে। তবে লিখিতভাবে এখনো কিছু জানানো হয়নি।’