Sunday April18,2021

নিউজিল্যান্ডের গিয়ে টানা ছয় ম্যাচে হেরেছে বাংলাদেশ। পুরো সফরে বাংলাদেশের প্রাপ্তি শূন্য। বোলিং, ব্যাটিং কিংবা ফিল্ডিং সব ডিপার্টমেন্টে ব্যর্থ হয়েছে টাইগাররা। তবে বিশ্বকাপ বাছাইয়ে ঘরের মাঠে ভিন্ন কিছু গড়ে দিতে আত্মবিশ্বাসী মাহমুদউল্লাহরা।

আজ বৃহস্পতিবার অকল্যান্ডের ইডেন পার্কে সফরের শেষ টি-টোয়েন্টি ম্যাচও হেরেছে টাইগাররা। ইনজুরির কারণে দলে ছিলেন না অধিনায়ক মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ।

তবে ম্যাচ শেষে সংবাদ সম্মেলনে যোগ দিয়ে তিনি বলেন, ‘আমরা বিশ্বকাপের আগের সিরিজের জন্য মুখিয়ে আছি। বিশেষত বিশ্বকাপের আগে আমাদের দুটি বড় সিরিজ আছে ইংল্যান্ড, অস্ট্রেলিয়া ও নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে। আমরা আমাদের ঘরের মাঠের সুবিধা নিতে চেষ্টা করব। আমরা বিশ্বাস করি, আমরা ঘরের মাঠে বেশ আত্মবিশ্বাসী।’

করোনার কারণে টাইগারদের স্পিন কোচ ডেনিয়েল ভেট্টোরির অভিজ্ঞতা কাজে লাগানোর সুযোগ পায়নি মেহেদি হাসান মিরাজরা। তবে নিউজিল্যান্ডে গিয়ে তার সঙ্গে কাজ করার সুযোগ পেয়েছিলেন স্পিনাররা।

সেখানে পেসারদের তুলনা স্পিনাররা ভালো করেছেন জানিয়ে মাহমুদউল্লাহ বলেন, ‘আমার মনে হয় স্পিনাররা ভালোই করেছে। স্পিন হেড কোচ ছিল ভেট্টোরি, যার এখানে অনেক অভিজ্ঞতা যেখানে বল গ্রিপ করে না। সে তার অভিজ্ঞতা শেয়ার করেছে এবং দারুণ কিছু উপদেশ দিয়েছে কন্ডিশন ব্যবহারের ব্যাপারে। স্পিনাররা বেশ প্রো-অ্যাকটিভ ছিল, টি-টোয়েন্টিতে কিছু বাউন্ডারি হতেই পারে, কিন্তু সব মিলিয়ে তাদের চিন্তাভাবনা ভালো ছিল ও তাদের পেইস ভ্যারিয়েশন ও লাইং লেংথ বেশ ভালো।’

পুরো সিরিজজুড়ে ভালো ক্রিকেট খেলা হয়নি জানিয়ে তিনি বলেন, ‘আমরা এখানে আগে এসেছি, নিজেদের প্রস্তুত করেছি, কুইন্সটাউনে ভালো একটি ক্যাম্প করেছি, ছেলেরা কঠোর পরিশ্রম করছিল, জিমে কাজ করছিল, কিন্তু আমরা মাঠে সেটি দেখাতে পারিনি। অধিনায়ক হিসেবে এটা হতাশাজনক। কিন্তু তারপরও আমাদের এই সিরিজ থেকে কিছু বের করতে হবে যা নিয়ে আমরা পরের সিরিজের জন্য কাজ করতে পারব। এবং অবশ্যই আমরা এই সিরিজটি ভুলতে চাইবো। কারণ আমরা এখানে এসেছিলাম কিছু অর্জন করতে কারণ আমরা এখানে আগে কখনও কিছু করতে পারিনি। কিন্তু আমরা মুখিয়ে ছিলাম এই সফরে প্রতিযোগিতার জন্য কিন্তু আমরা কিছু করতে পারিনি।’