Sunday April11,2021

হেফাজতের ডাকা হরতালে ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় দুইজন নিহতের খবর পাওয়া গেছে। তবে তাৎক্ষণিক ভাবে তার পরিচয় পাওয়া যায়নি।

রোববার হরতালে সকাল থেকেই ব্রাহ্মণবাড়িয়াতে সহিংসতা ছড়িয়ে পড়েছে। মাদ্রাসা ছাত্রদের সাথে বহিরাগতরা মিলে হামলা চালিয়ে ব্রাহ্মণবাড়িয়া পৌরসভা, জেলা পরিষদ, টাউন হল, বই মেলা, আলাউদ্দিন সঙ্গীতাঙ্গন, জেলা ছাত্রলীগ সাধারণ সম্পাদক শোভনের বাড়ি, জেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক আল মামুন সরকারের অফিস আগুনে পুড়িয়ে দেওয়া হয়েছে।

একই সাথে ভাংচুর করা হয়েছে পৌর মুক্তমঞ্চ, ব্রাহ্মণবাড়িয়া প্রেসক্লব, ব্যংক এশিয়া, দলিল লেখক সমিতি, মুক্তিযুদ্ধা সংসদ, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ছবি।

এছাড়া শহরের পীরবাড়িতে ব্রাহ্মবাড়িয়া পুলিশ লাইনে বিক্ষোভকারীরা হামলা চালিয় ভাংচুর করে। তখন পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে ঘন্টাব্যাপী পুলিশ রাবার বুলেট ও টিয়ারগ্যাস নিক্ষেপ করে। বিক্ষোভকারীরা কুমিল্লা-সিলেট মহাসড়কের ব্রাহ্মণবাড়িয়া শহর অংশে ও বিশ্বরোডে আগুন জ্বালিয়ে রাস্তা অবরোধ করে রাখে।

হামলা চলাকালীন সময়ে শহরে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর কোন সদস্যকে দেখতে পাওয়া যায়নি। দুপুর সাড়ে ১২ টার দিকে সদর থানার মসজিদ থেকে পুলিশের পক্ষ থেকে মাইকিং করা হয়েছে। পুলিশ মাদ্রাসা ছাত্রদের উদ্যেশে বলেছে তারা যেন থানায় হামলা না করে। তবে এছাতা তারা যেকোন কিছু ভাংচুর করুক।

সংবাদ সংগ্রহ করতে গিয়ে হামলার শিকার হয়েছেন ব্রাহ্মণবাড়িয়া প্রেসক্লাবের সভাপতি রিয়াজ উদ্দিন জামি। এছাড়া শহরের পীরবাড়িতে দৈনিক অন্য দিগন্ত পত্রিকার জেলা প্রতিনিধি মাইনুদ্দীন চিশতী ও ইন্ডিয়ান নিউজ চ্যানেল এক্সপ্রেস নিউজের ক্যামেরা পারসন আরিফুল ইসলাম বাবু বিক্ষোভকারীদের হামলার শিকার হয়েছেন।