Tuesday April20,2021

করোনাভাইরাসের গণটিকাদান কর্মসূচিতে বিদেশি নাগরিকদের অন্তর্ভুক্ত করা হচ্ছে। আগামী ১৭ মার্চ জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মদিন থেকে দেশে বসবাসরত ও কার্যরত বিদেশি নাগরিকদের করোনাভাইরাসের টিকা নিবন্ধন শুরু হবে। এজন্য টিকা নিবন্ধনের ওয়েবসাইট সুরক্ষায় একটি আলাদা ট্যাব যুক্ত করা হচ্ছে।

আজ শনিবার স্বাস্থ্য অধিদপ্তর এক প্রজ্ঞাপনে এ তথ্য জানিয়েছে।

গত ২৭ জানুয়ারি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা টিকাদান কর্মসূচির উদ্বোধন করেন। এরপর ৭ ফেব্রুয়ারি থেকে গণটিকাদান কর্মসূচি চলছে দেশে। অক্সফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয় ও অ্যাস্ট্রাজেনেকার তৈরি টিকা দেওয়া হচ্ছে নাগরিকদের। ভারতের সেরাম ইনস্টিটিউট থেকে কিনে এনে এসব টিকা দেওয়া হচ্ছে। সেরাম ইনস্টিটিউট থেকে তিন কোটি ডোজ টিকা কেনার চুক্তি করেছে সরকার, যার মধ্যে ৫০ লাখ ডোজ দেশে এসেছে। এছাড়া ভারত সরকার উপহার হিসেবে সরকারকে ২০ লাখ ডোজ টিকা দিয়েছে।

গত বছরের ৮ মার্চ প্রথম করোনাভাইরাসে সংক্রমিত ব্যক্তি শনাক্ত হয় দেশে। স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের তথ্য অনুযায়ী, এ পর্যন্ত পাঁচ লাখ ৪৯ হাজার ৭২৪ জন আক্রান্ত হয়েছেন। এরমধ্যে সুস্থ হয়েছেন পাঁচ লাখ এক হাজার ৯৬৬ জন। এ মহামারি ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে গতকাল পর্যন্ত আট হাজার ৪৫১ জনের মৃত্যু হয়েছে।

স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের প্রজ্ঞাপনে বলা হয়েছে, যেসব বিদেশি নাগরিকের এ, এ১, এ২, এফএ২, ডি, এনডি ও এম ক্যাটাগরির ভিসা আছে, তারা টিকা নিতে পারবেন। তবে অবশ্যই ভিসার মেয়াদ কমপক্ষে ছয় মাস থাকতে হবে। এ ধরনের ভিসাধারীদের তাদের দূতাবাস বা হাইকশিমন অফিস বা সংশ্নিষ্ট অফিসের মাধ্যমে বিস্তারিত তথ্য পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে পাঠাতে হবে। পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়কে টিকাগ্রহণে ইচ্ছুক ব্যক্তির নাম, পাসপোর্ট নম্বর, জন্ম তারিখ, জাতীয়তা, লিঙ্গ, ভিসার ধরন, ভিসার মেয়াদোত্তীর্ণের তারিখ, তার অফিসের নাম এবং মোবাইল নম্বর (স্থানীয় যে নম্বরে এসএমএস পেতে ইচ্ছুক) দিতে হবে।

১৭ মার্চ টিকা নিবন্ধন শুরু হলেও, পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে তথ্য পাঠানোর পাঁচদিন পর বিদেশি নাগরিক নিজে নিবন্ধন করতে পারবেন। নিবন্ধনের পর মোবাইলে এসএমএস পাওয়ার পরই বিদেশি নাগরিকরা টিকা নিতে পারবেন।