Wednesday April14,2021

বাংলাদেশকে ভারতের সত্যিকারের বন্ধু অভিহিত করে ভারতের পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এস জয়শঙ্কর বলেছেন, উভয় দেশের মধ্যে সম্পর্ক এমন জায়গায় দাঁড়িয়েছে যে, এখন এমন কোনো ইস্যু নেই যে উভয় দেশের মধ্যে আলোচনা হতে পারে না।

বৃহস্পতিবার (৪ মার্চ) রাষ্ট্রীয় অতিথি ভবন পদ্মায় পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আব্দুল মোমেনের সঙ্গে বৈঠক শেষে সাংবাদিকদের এক ব্রিফিংয়ে এ কথা বলেন তিনি।

ড. এস জয়শঙ্কর বলেন, ‘বাংলাদেশ-ভারতের মধ্যে উভয় দেশের সব সমস্যা ও সম্ভাবনা নিয়ে আলোচনা হতে পারে।’

বাংলাদেশের স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তীতে ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি ঢাকায় আসছেন জানিয়ে তিনি বলেন, ‘করোনাভাইরাসের পরবর্তী সময়ে মোদির এটাই প্রথম বিদেশ সফর।’

বাংলাদেশ-ভারত সীমান্ত হত্যা নিয়ে জয়শঙ্কর বলেন, ‘নো ক্রাইম নো কিলিং। তবে সীমান্তে হত্যা দুঃখজনক। আমরা চাই না, একজন মানুষও মারা যাক।’

পানি বণ্টন নিয়ে তিনি বলেন, ‘উভয় দেশের মধ্যে পানি বণ্টন নিয়ে আমরা সুষ্ঠু সমাধানের লক্ষ্যে কাজ করছি। ভারত আগের অবস্থানে রয়েছে। এই বিষয়ে আলোচনার যথেষ্ট সুযোগ রয়েছে।’

তিনি আরও বলেন, ‘দেশের স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী এবং মুজিববর্ষ আমাদের দেশের জন্যও অত্যধিক গুরুত্বপূর্ণ। আমাদের দ্বিপাক্ষিক সম্পর্কে অনেক অগ্রগতি হয়েছে। বাংলাদেশ আমাদের কাছে শুধু একজন প্রতিনিধি না বরং সারা বিশ্বের মধ্যে অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ অর্থনৈতিক অংশীদার। আমাদের সম্পর্ক এমন পর্যায়ে পৌঁছেছে যে আমরা শুধু আলোচনার মাধ্যমেই যেকোনো সংকটের সমাধান করতে পারি।’

জয়শঙ্কর উন্নয়নশীল দেশের স্ট্যাটাস পাওয়ায় বাংলাদেশকে অভিনন্দন জানিয়ে বলেন, ‘বাংলাদেশ সম্পূর্ণ নিজের কাজ ও যোগ্যতায় এটি অর্জন করেছে।’

এ সময় তিনি আরও বলেন, ‘বাংলাদেশকে নিশ্চয়তা দিতে চাই যেকোনো পরিস্থিতিতে ভারত বাংলাদেশের পাশে থাকবে। আর এ দুদেশের মধ্যে উন্নয়নকে কেন্দ্র করে অনেক সম্ভাবনা আছে। সেটা খুঁজে বের করতেই এ সফরে আসা।’

এ সময় পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আব্দুল মোমেন জানান, ভারতের পররাষ্ট্রমন্ত্রীর সঙ্গে নিরাপত্তা, অভিন্ন নদীর পানি বণ্টন, বাণিজ্য, পারস্পরিক সম্পর্কোন্নয়নসহ দ্বিপাক্ষিক বিভিন্ন বিষয়ে আলোচনা হয়েছে।