Thursday March4,2021

 ইয়াবা উদ্ধার মামলার আসামি মো. রাজিব হোসেন রাজুকে মুক্তিযুদ্ধ ও নৈতিকতার ওপর ৪টি বই পড়ার আদেশ দিয়েছেন আদালত। একইসঙ্গে এই আসামিকে মুক্তিযুদ্ধে ওপর নির্মিত একটি সিনেমা দেখা ও ৫টি গাছ রোপণের আদেশও দেওয়া হয়েছে।  

বুধবার (১৭ ফেব্রুয়ারি) ঢাকার মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট আদালতের বিচারক বেগম মাহমুদা আক্তার রায় ঘোষণা করেন।

সংশ্লিষ্ট আদালতের সহকারী পাবলিক প্রসিকিউটর আজাদ রহমান রায়ের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

মামলার অভিযোগে বলা হয়েছে, ২০১৭ সালের ৬ নভেম্বর রাজুকে গেন্ডারিয়া থানাধীন এসকে দাস রোডস্থ নাজির হোসেনের বাড়ির সামনে থেকে ৩০ পিস ইয়াবাসহ গ্রেপ্তার করা হয়। এই ঘটনায় পরদিন গেন্ডারিয়া থানার এসআই মো. সাজ্জাদুজ্জামান  মাদক আইনে রাজুর বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করেন। তদন্ত শেষে ওই বছরের ২৭ নভেম্বর গেন্ডারিয়া থানার এসআই রাশেদুল আলম চার্জশিট দাখিল করেন।

এরপর সাক্ষ‌্যগ্রহণ শেষে আদালত রায় ঘোষণা করেন।  রায়ে আদালত বলেন, আসামিকে শাস্তির পরিবর্তে প্রবেশন অফিসারের তত্ত্বাবধায়নে এক বছরের জন্য প্রবেশন মঞ্জুর করা হলো। এই সময়ের মধ্যে আসামি একই ধরনের বা অন্য কোনো অপরাধ করবেন না। মাদক সেবন করবেন না, খারাপ সঙ্গীর সঙ্গে মিশবেন না। কোর্ট ও আইন প্রয়োগকারী সংস্থা তলব করলে যথাসময়ে উপস্থিত হবেন।  এছাড়া, ওই সময়ের মধ্যে তাকে মহান মুক্তিযুদ্ধে ওপর প্রকাশিত ‘একাত্তরের দিনগুলি’, ‘একাত্তরের চিঠি’ এবং নৈতিকতার ওপর প্রকাশিত ২টি বই পড়বেন। পাশাপাশি মুক্তিযুদ্ধের ওপর নির্মিত সিনেমা ‘আগুনের পরশমনি’ দেখতে হবে। একই সময়ে তিনি ২টি বনজ ও ৩টি ফলজ বৃক্ষ রোপণ করবেন।

রায়ে আরও বলা হয়েছে, যদি আসামি উল্লিখিত কোনো শর্ত ভঙ্গ করেন বা তার আচরণ সন্তোষজনক না হয়, তাহলে প্রবেশন বাতিল হবে। শাস্তি হিসেবে ৬ মাসের কারাভোগ করতে হবে। তবে তার প্রবেশন সময় সন্তোষজনক হলে আসামির চাকরিসহ ভবিষ্যৎ জীবনে কোথাও অযোগ্য বলে গণ‌্য হবেন না।