Wednesday March3,2021

 আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস উপলক্ষে ১৯ ফেব্রুয়ারি থেকে চার দিনব্যাপী অনলাইনে আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা সম্মেলন ২০২১ শুরু হচ্ছে। ‘পৃথিবীর সব ভাষা বেঁচে থাকুক আপন মহিমায়’ প্রতিপাদ্য নিয়ে এ আয়োজন করছে মুক্ত আসর ও ছায়ানট (কলকাতা)। সম্মেলনে অংশ নেবেন ৯টি দেশের ৩৬জন বিশিষ্ট শিক্ষক, গবেষক, শিক্ষাবিদ, সংগীতশিল্পী ও গণমাধ্যম ব্যক্তিত্ব। অনুষ্ঠান সম্পর্কে ভারতের নজরুল সংগীতশিল্পী ও ছায়ানটের (কলকাতা) সভাপতি সোমঋতা মল্লিক বলেন, ‘আমরা কলকাতায় প্রতিবছর আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস উপলক্ষে দুই দিনব্যাপী অনুষ্ঠানের আয়োজন করে থাকি। এবার করোনাভাইরাসের কারণে তা সম্ভব হয়ে ওঠেনি। তাই বাংলাদেশের মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক সংগঠন ‘মুক্ত আসর’ ও আমাদের সংগঠন ‘ছায়ানট (কলকাতা)’-এর যৌথ উদ্যোগে অনলাইনে আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা সম্মেলন আয়োজন করতে চলেছি।

 

এতে করে দুই দেশের পারস্পরিক সাংস্কৃতিক সম্পৃক্ততা আরও বৃদ্ধি পাবে বলে আশা করি।’ মুক্ত আসরের প্রতিষ্ঠাতা ও সভাপতি আবু সাঈদ বলেন, ‘আগামী ১৯-২২ ফেব্রুয়ারি আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা ও শহীদ দিবস উপলক্ষে মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক সংগঠন মুক্ত আসর ও ভারতের ছায়ানট (কলকাতা) চার দিনব্যাপী অনলাইনে আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা সম্মেলন আয়োজন করতে যাচ্ছে। সম্মেলনে অংশ নেবেন বাংলাদেশ, ভারত, যুক্তরাজ্য, যুক্তরাষ্ট্র, পেরু, নেপাল, জার্মানি, রাশিয়া ও অস্ট্রেলিয়া থেকে ৩৬ জন বিশিষ্ট শিক্ষাবিদ, গবেষক, সংগীতশিল্পী ও সাংবাদিক। তাঁরা বাংলা ভাষাসহ অন্যান্য ভাষার চর্চা বৃদ্ধি ও উন্নয়ন সম্পর্কে আলোচনা করবেন।’ ১৯ ফেব্রুয়ারি বিকেল ৫টায় অনুষ্ঠানের উদ্বোধন করবেন ভাষাসংগ্রামী, বিশিষ্ট রবীন্দ্রগবেষক আহমদ রফিক। অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকবেন বিশিষ্ট শিক্ষাবিদ, সাহিত্যিক ও গবেষক অধ্যাপক পবিত্র সরকার, মুক্ত আসরের প্রধান উপদেষ্টা মেজর জেনারেল (অব.) মাসুদুর রহমান বীর প্রতীক, কথাসাহিত্যিক সেলিনা হোসেন, লেখক ও সাংবাদিক সৈয়দ হাসমত জালাল, বাংলাদেশ ইতিহাস অলিম্পিয়াড জাতীয় কমিটির সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য অধ্যাপক ড.আবেদা সুলতানা, ডা. আহমেদ হেলাল, নুরুন আকতার প্রমুখ।

 

অনলাইনে চার দিনব্যাপী আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা সম্মেলনে আলোচনা ও প্রবন্ধ উপস্থাপন করবেন জাতীয় অধ্যাপক, বিশিষ্ট নজরুল গবেষক ড. রফিকুল ইসলাম, ইনস্টিটিউট অব বাংলাদেশ স্টাডিজের অধ্যাপক ড. স্বরোচিষ সরকার, গবেষক ও লেখক মানিক মোহাম্মদ রাজ্জাক, মঞ্চ ও টেলিভিশন ব্যক্তিত্ব খ.ম. হারুন, বাংলাদেশ ইতিহাস অলিম্পিয়াড জাতীয় কমিটি সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য অধ্যাপক ড. এমরান জাহান, গবেষক ও উন্নয়নকর্মী মথুরা বিকাশ ত্রিপুরা, গবেষক শুভ্র জ্যোতি চাকমা, গবেষক হাসিনুল ইসলাম, নজরুল সংগীতশিল্পী ও শব্দসৈনিক বুলবুল মহালনবীশ, নজরুল সংগীতশিল্পী শহীদ করির পলাশ, অধ্যাপক রাশেদা নাসরিন, প্রশিক্ষক ড. কাজী সামিও শশী, অনুবাদক এ এইচ এস মোহাম্মদ, ভারতের বিশিষ্ট সাংবাদিক ও শব্দসৈনিক পঙ্কজ সাহা, আসামের বিশিষ্ট গবেষক ড. রেজাউল করিম, যুক্তরাষ্ট্র থেকে ই-লার্নিং বিশেষজ্ঞ, শিক্ষাবিদ অধ্যাপক ড. বদরুল হুদা খান, গবেষক ড. শুভ্রদত্ত, নজরুল সংগীতশিল্পী সালাউদ্দিন আহমেদ, অস্ট্রেলিয়া থেকে শিল্পী রহমান, পেরুর বিশিষ্ট চলচ্চিত্র ও লেখক ওয়াল্টার ভিয়ানোয়েভা, নেপালের শিক্ষক মুকেশ শ্রেষ্ঠা, রাশিয়ার শিক্ষাবিদ ভিক্টোরিয়া চারকিনা, যুক্তরাজ্য থেকে প্রিয়জিৎ সরকার দেব, জার্মানি থেকে  হাবিব বাবুল প্রমুখ। আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা সম্মেলনের সহযোগিতায় আছে বাংলাদেশ ইতিহাস অলিম্পিয়াড জাতীয় কমিটি, স্বপ্ন ’৭১ প্রকাশন।

বিএস/শুদ্ধস্বর ডটকম ।