Thursday March4,2021

শহীদ বুদ্ধিজীবী সিরাজউদ্দীন হোসেনের ছেলে সাংবাদিক শাহীন রেজা নূর মারা গেছেন। আজ শনিবার বাংলাদেশ সময় কানাডার ভ্যাংকুভারের একটি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় সকাল ১০টার দিকে মারা গেছেন তিনি (ইন্না লিল্লাহি … রাজিউন)। মৃত্যুকালে তার বয়স হয়েছিল ৬৬ বছর। তার দুই ছেলে রয়েছে।

ইত্তেফাকের সাবেক সাংবাদিক শাহীন রেজা নূর দীর্ঘদিন ধরে কানাডায় বসবাস করছিলেন। যুদ্ধাপরাধীদের বিচার দাবির আন্দোলনে তিনি ছিলেন সক্রিয়। ‘প্রজন্ম একাত্তর’-এর সভাপতি হিসেবে নেতৃত্ব দিয়েছেন। তিনি জামায়াত নেতা আলী আহসান মো. মুজাহিদের বিরুদ্ধে যুদ্ধাপরাধ ট্রাইব্যুনালের সাক্ষী ছিলেন। এজন্য তিনি হামলার মুখেও পড়েছিলেন।

গত তিন বছর ধরে শাহীন রেজা নূর অগ্নাশয়ের ক্যান্সারে ভুগছিলেন। তার কেমো চলছিল। এর আগে কোলন ক্যান্সার হওয়ার পর চিকিৎসায় সেরে উঠেছিলেন তিনি।

শাহীন রেজা নূরের মৃত্যুতে গভীর শোক ও দুঃখ প্রকাশ করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। এক শোক বার্তায় শেখ হাসিনা মহান মুক্তিযুদ্ধের চেতনা বাস্তবায়ন এবং যুদ্ধাপরাধীদের বিচারের দাবিতে গণআন্দোলনে শাহীন রেজা নূরের ভূমিকা শ্রদ্ধার সঙ্গে স্মরণ করেন। প্রধানমন্ত্রী মরহুমের আত্মার মাগফিরাত কামনা করেন এবং তার শোকসন্তপ্ত পরিবারের সদস্যদের প্রতি গভীর সমবেদনা জানান।

শাহীন রেজা নূরের ভাই সাংবাদিক তৌহিদ রেজা নূর বলেন, ‘শাহীন ও আমাদের পরিবারের ইচ্ছা, তার অন্তিম শয়ান হোক দেশের মাটিতেই। এ ব্যাপারে আমরা মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর হস্তক্ষেপ কামনা করছি।’

শাহীন রেজা নূরের বাবা সিরাজুদ্দীন হোসেন দৈনিক ইত্তেফাকের বার্তা ও কার্যনির্বাহী সম্পাদক ছিলেন। ১৯৭১ সালের ১০ ডিসেম্বর বুদ্ধিজীবী নিধনযজ্ঞের নির্মম শিকার হন তিনি। তার আট সন্তানের মধ্যে দ্বিতীয় শাহীন। ১৯৫৫ সালে মাগুরা জেলার শালিখা থানার শরশুনা গ্রামে জন্মগ্রহণ করেন তিনি।

শাহীন রেজা নূর ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে বাংলায় স্নাতক ও জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ইংরেজিতে স্নাতকোত্তর করেন। ১৯৭৩ সালের নভেম্বর মাসে দৈনিক ইত্তেফাকের শিক্ষানবিশ সহসম্পাদক পদে যোগ দেন। টানা ১৬ বছর ইত্তেফাকে সাংবাদিকতা করার পর ১৯৮৮ সালে কানাডা যান তিনি। সেখানেও তিনি সাংবাদিকতার সঙ্গে যুক্ত ছিলেন।