Wednesday March3,2021

বগুড়ায় সনাতন ধর্মাবলম্বীদের (হিন্দু) হরিবাসর অনুষ্ঠানে সনাতন চন্দ্র প্রামানিক নামের এক স্বেচ্ছাসেবককে খুনের মামলায় দুজনের ফাঁসি ও তিনজনের যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দিয়েছেন আদালত। আজ মঙ্গলবার বিকেলে বগুড়ার ১ নম্বর অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ আদালতের বিচারক ইসরাত জাহান এ রায় ঘোষণা করেন।

ফাঁসির দন্ডপ্রাপ্ত আসামিরা হলেন শাজাহানপুর উপজেলার গন্ডগ্রাম দক্ষিণপাড়ার আলমগীর হোসেনের ছেলে বিপুল (২৭) ও বগুড়া শহরের সুত্রাপুরের আইনুল হকের ছেলে অরুণ (২৫)। যাবজ্জীবন দণ্ডপ্রাপ্তরা হলেন রাজিব সরকার (৩০), রাফিউল ইসলাম রনি (২৭) ও আলম (২৫)।

রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবী বিনয় কুমার ঘোষ রজত জানান, ২০১৬ সালের ২ এপ্রিল শাজাহানপুর উপজেলার গন্ডগ্রাম আদি কালিবাড়ি প্রাঙ্গণে সনাতন ধর্মাবলম্বীদের (হিন্দু) মহানামযজ্ঞ অনুষ্ঠান (হরিবাসর) চলছিল। সেখানে স্বেচ্ছাসেবক হিসেবে দায়িত্ব পালন করছিলেন সনাতন চন্দ্র প্রামানিকসহ আরও কয়েক যুবক।

রাত ১১টার দিকে হরিবাসরে আগত নারীদেরকে উত্ত্যক্ত করছিল স্থানীয় কয়েকজন যুবক। সনাতন চন্দ্র এর প্রতিবাদ করলে তারা তাকে উপুর্যপুরি ছুরিকাঘাত করেন। সেখান থেকে তাকে উদ্ধার করে বগুড়া শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হলে রাতেই সনাতন মারা যান। এ ঘটনায় নিহতের বাবা সুরথ চন্দ্র প্রামানিক শাজাহানপুর থানায় মামলা দায়ের করেন।

শাজাহানপুর থানার তৎকালীন উপপরিদর্শক (এসআই) খোকন চন্দ্র কুন্ডু মামলাটি তদন্ত শেষে আদালতে চার্জশিট দাখিল করেন। এরপর সাক্ষীদের জবানবন্দি গ্রহণ শেষে আসামিদের উপস্থিতিতে মামলার রায় ঘোষণা করা হয়।