Saturday March6,2021

মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রী আ ক ম মোজাম্মেল হক বলেছেন, বাসা বাড়ির মালিকদের প্রতি অনুরোধ, শ্রমিকের বেতন না বাড়লে বাসা ভাড়া বাড়াবেন না। কারণ একজন শ্রমিক অনেক কষ্টে কম বেতনে কাজ করেন। যখন খুশি ইচ্ছামত যা তাই করতে পারেন না। আপনার ভাড়াটিয়ার দিকেও খেয়াল রাখতে হবে।

মন্ত্রী বলেন, আমাদের রাজনৈতিক নেতাদের দায়িত্ব শ্রমিকের স্বাস্থ্য মানে মাসের নির্ধারিত তারিখে বেদনাদি পরিশোধ করার ব্যবস্থা করা। যদি কোন শিল্প কারখানার মালিক তার কারখানা লে-অফ করেন, তাহলেও রাষ্ট্রের আইন অনুযায়ী শ্রমিকের সকল পাওনা বুঝিয়ে দিতে হবে। শ্রমিক ভাইদের প্রতি অনুরোধ রাখি, মিল যদি চালু না থাকে তাহলে দেশে ক্ষতি হবে। আমরা রপ্তানি আয় থেকে বঞ্চিত হবো। আমার শ্রমিকদের বুঝতে হবে, মিল চালু থাকলে আপনাদের রুজি রোজগারের ব্যবস্থা থাকবে।

আজ শুক্রবার সন্ধ্যায় গাজীপুরের কালিয়াকৈর উপজেলার আন্ধারমানিক গ্রামের আব্দুল্লাহ মডেল স্কুল মাঠে আয়োজিত এক শ্রমিক সমাবেশে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন তিনি।

মন্ত্রী আরও বলেন, শ্রমিক মালিক দু’জনে মিলে যদি কারখানা চালান তাহলে বাংলাদেশের উন্নতি হবে। অনেকে বিদেশি চক্রের মাধ্যমে ক্ষতি করার চেষ্টা করেন। অনেক লোক ভাড়াটিয়া লোক রাখেন যাতে শ্রমিক মালিক বিরোধ বাজিয়ে দিয়ে আমাদের দেশের উৎপাদন ব্যাহত হয়। যাতে আমরা বিদেশে মালামাল দিতে না পেরে বৈদেশিক মুদ্রা অর্জন করতে না পারি। আমাদের অর্থনৈতিকে ধস নামে, অর্থনৈতিক যেন পঙ্গু হয়ে যায়।

স্বাধীন বাংলা গার্মেন্টস শ্রমিক কর্মচারী ফেডারেশনের কেন্দ্রিয় কমিটির সাধারণ সম্পাদক মীর আবুল কালাম আজাদের সভাপতিত্বে সমাবেশে আরও বক্তব্য রাখেন উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি মুরাদ কবীর, সাধারণ সম্পাদক রেজাউল করিম রাসেল, গাজীপুর জেলা আওয়ামী লীগের সদস্য ও মেয়র প্রার্থী রফিকুল ইসলাম তুষার, জাতীয় শ্রমিক লীগ গাজীপুর জেলা কমিটির সাধারণ সম্পাদক মফিজুর রহমান লিটন, জাতীয় শ্রমিক লীগ কালিয়াকৈর পৌর শাখার সাধারণ সম্পাদক সেলিম মাহমুদ, রফিক দেওয়ান প্রমুখ।