Thursday March4,2021

বগুড়ায় ‘বিষাক্ত মদপানে’ মৃতের সংখ্যা বেড়ে ১০ জনে দাঁড়িয়েছে। 

বগুড়ার শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে মঙ্গলবার (২ ফেব্রুয়ারি) সকালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় আরও ৩ জনের মৃত্যু হলে মৃতের সংখ্যা বেড়ে ১০ জনে দাঁড়ায়।

এর আগে গতকাল সোমবার যে ৭ জন মারা যান তারা হলেন- রাজমিস্ত্রী রমজান আলী, সুমন, চা বিক্রেতা সাজু, বাবুর্চি মোজাহার আলী, পলাশ, আলমগীর ও অটোচালক আব্দুল কালাম।

মঙ্গলবার সকালে মারা যান শহরস্থ তিনমাথা এলাকার বাসিন্দা প্রেমনাথ রবিদাস, রামনাথ রবিদাস ও শিববাটি এলাকার রঞ্জু মিয়া। রবিনাথ রবিদাস নামে অপর একজনকে হাসপাতালে ভর্তি দেখালেও তার হদিস মিলছে না বলে হাসপাতাল সূত্রে জানা গেছে।

গত ৩১ জানুয়ারি রাতে পুরান বগুড়া, ভবের বাজার, কাহালু, ফুলবাড়ি ও কাটনারপাড়া এলাকায় পৃথক এ মৃত্যুর ঘটনা ঘটে।

এলাকাবাসী সূত্রে জানা যায়, শহরের তিনমাথা এলাকার ঋষি পরিবারের ছেলে চঞ্চলের বিয়ের অনুষ্ঠান ছিল গত রবিবার (৩১ জানুয়ারি) রাতে। সেই উপলক্ষে বিয়ে বাড়িতে আসা আমন্ত্রিতরা পার্শ্ববর্তী একটি হোমিও দোকান থেকে অ্যালকোহল কিনে পান করেন। রাতে বাড়ি ফিরলে সুমন তার বাবা প্রেমনাথ ও চাচা রমনাথ এবং প্রতিবেশী রমজান অসুস্থ হয়ে পড়েন। ভোর রাকের দিকে তাদের বগুড়া শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হলে জরুরি বিভাগে কর্তব্যরত চিকিৎসক সুমনকে মৃত ঘোষণা করেন। মঙ্গলবার সকালে মদপানে অসুস্থ দুই ভাই প্রেমনাথ ও রামনাথও হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান।
অপরদিকে শহরের কালিতলা এলাকায় একই রাতে অ্যালকোহল জাতীয় মদপান করেন সাজু, মোজহার ও আব্দুল জলিল। রাতে বাড়ি ফিরলে অসুস্থ হয়ে তিনজনই মারা যান।

বগুড়া পৌরসভার ৩নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর তরুণ কুমার চক্রবর্তী বলেন, ‘তিনজনই কালিতলা বাজার এলাকায় অতিরিক্ত অ্যালকোহল পান করে অসুস্থ হয়ে বাড়িতেই মারা যান।’

বগুড়া সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) হুমায়ুন কবীর জানিয়েছেন, হাসপাতালে যারা মারা গেছে তাদের মরদেহ পরিবারের কাছে হস্তান্তরের প্রক্রিয়া চলছে।