Thursday March4,2021

সেবা প্রার্থীর সমস্যাকে নিজের সমস্যার মত গুরুত্ব দিয়ে দাফতরিক কার্যক্রম সম্পাদন করার নির্দেশ দিয়েছেন ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের (ডিএসসিসি) মেয়র ব্যারিস্টার শেখ তাপস। তিনি বলেন, সেবা প্রার্থীর সমস্যাকে নিজের সমস্যার মত গুরুত্ব দিয়ে দাফতরিক কার্যক্রম সম্পাদন করতে হবে। একই সঙ্গে নাগরিক সেবায় বিদ্যমান চ্যালেঞ্জকে ব্যক্তিগত চ্যালেঞ্জ হিসেবে মনে করে কাজ করারও নির্দেশনা দেন।

মঙ্গলবার (২ ফেব্রুয়ারি) নগর ভবনের বুড়িগঙ্গা হলে নিয়মিত মাসিক সমন্বয় সভার শুরুতে করপোরেশনের কর্মকর্তাদের মাঝে ল্যাপটপ বিতরণ করার পর তাপস এ কথা বলেন।

এ সময় তাপসকে তার দাফতরিক ল্যাপটপ হস্তান্তর করেন করপোরেশনের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা এ বি এম আমিন উল্লাহ নুরী। পরবর্তীতে একে একে সকল বিভাগীয় প্রধান ও আঞ্চলিক নির্বাহী কর্মকর্তাদেরকে ল্যাপটপ হস্তান্তর করেন তাপস।

মেয়র বলেন, সরকারি কার্যক্রমকে গতিশীল করার লক্ষ্যে সরকার যেমন ই-নথি চালু করেছে, তেমনি ক্রয় কার্যে ই-জিপি বাস্তবায়ন করা হয়েছে। তাই কাঠামোবদ্ধ দাফতরিক সময়সূচির বাইরেও জনগণকে সেবা প্রদানে সবাইকে আরও বেশি আন্তরিক হতে হবে। জনগণের সেবা প্রাপ্তির পথে বিদ্যমান চ্যালেঞ্জগুলো চিহ্নিত করে সেসব চ্যালেঞ্জ উত্তরণে আরও বেশি মনোযোগী হতে হবে।

তিনি বলেন, ডিজিটাল বাংলাদেশ বিনির্মাণের অংশ হিসেবে আমাদের কার্যক্রমে যেমন স্বচ্ছতা ও জবাবদিহিতা নিশ্চিত করতে হবে, তেমনি সেবা প্রার্থীদেরকে দ্রুততার সঙ্গে প্রদান করতে হবে। সেজন্য ল্যাপটপ প্রদানের এই উদ্যোগ করপোরেশনের কার্যক্রমকে সার্বিকভাবে আরও গতিশীল করবে বলে আমার বিশ্বাস।

ফেব্রুয়ারি মাস বাংলা ভাষা অর্জনে গভীর আত্মত্যাগের মাস উল্লেখ করে শেখ তাপস বলেন, সর্বত্র বাংলা ভাষা প্রচলনে আমাদেরকে দাফতরিকভাবে এবং দৈনন্দিন কার্যক্রমে সচেতনভাবে বাংলা ভাষার প্রয়োগে মনোযোগী হতে হবে। সেজন্য সকল দফতর প্রধানসহ আঞ্চলিক নির্বাহী কর্মকর্তাদেরকে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখতে হবে।

এ সময় ডিএসসিসি মেয়র আঞ্চলিক নির্বাহী কর্মকর্তাসহ সকল দফতর প্রধানকে দাফতরিক নানা বিষয়ে দিক নির্দেশনা প্রদান করেন।

বৈঠকে প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা এ বি এম আমিন উল্লাহ নুরী, প্রধান বর্জ্য ব্যবস্থাপনা কর্মকর্তা এয়ার কমডোর মো. বদরুল আমিন, প্রধান স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ব্রিগেডিয়ার জেনারেল ডা. শরীফ আহমেদ, প্রধান প্রকৌশলী রেজাউর রহমান, সচিব আকরামুজ্জামানসহ দফতর প্রধান ও আঞ্চলিক নির্বাহী কর্মকর্তাদের মাঝে মোট ৬১টি ল্যাপটপ বিতরণ করা হয়।