Thursday March4,2021

শেরপুরে ট্রাক ও সিএনজি চালিত অটোরিকশার মুখোমুখি সংঘর্ষে সিএনজিতে থাকা যাত্রী নিহতের সংখ্যা বেড়ে ছয় জনে দাঁড়িয়েছে।

রবিবার (৩১ জানুয়ারি) সকালে সদর উপজেলার বাজিতখিলা ইউনিয়নের মির্জাপুর এলাকায় এ র্দুঘটনা ঘটে। আহত অবস্থায় ময়মনসিংহ মেডিক্যাল কলেজে হাসপাতালে মামুন (২৪) কে ভর্তি করা হয়। সে রাত অনুমান ৮ টার দিকে ময়মনসিংহ মেডিক্যালে মৃত্যুবরণ করেন। এটি নিয়ে মোট মৃত্যুর সংখ্যা দাড়ালো ৬ জনে।

নিহতরা হলেন- জেলার নালিতাবাড়ী উপজেলার নলজোড়া গ্রামের রফিকুল ইসলামের স্ত্রী রোকসানা বেগম (৩০), একই উপজেলার চাঁদগাঁও গ্রামের তায়েব আলীর ছেলে মো. সেলিম (২৫), তিনআনী ঘুটুপাড়া গ্রামের মৃত আব্দুল হাইয়ের ছেলে আ.মান্নান (৫৮), নালিতাবাড়ী উপজেলার চাদগাঁও এলাকার কেতু মিয়ার ছেলে লাল মিয়া (৩৫) ও অটোরিকশা চালক নন্নী বন্দধারা গ্রামের ইউসুফ আলীর ছেলে জোবেদ আলী (২৫),মামুন (২৪), পিতা মিস্টার আলী, গ্রাম- নন্নী বাইগরপাড়া, নালিতাবাড়ী জেলা- শেরপুর। এর আগে, সকালে ঘটনাস্থলে তিনজন, হাসপাতালে নেয়ার পর একজন ও বিকেলে আরো একজনসহ মোট পাঁচজন নিহত হলেন।

নিহত রোকসানার শিশুকন্যা আহত রুমি বেগম (৭) জেলা হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছে। হতাহতরা সবাই নালিতাবাড়ীর নন্নী এলাকা থেকে অটোরিকশায় উঠেছিলেন।

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, সকাল পৌণে ৯টার দিকে একটি সিএনজিচালিত অটোরিকশা জেলার নালিতাবাড়ী উপজেলার নন্নী বাজার থেকে যাত্রী নিয়ে শেরপুর শহরে আসছিল। পথিমধ্যে শেরপুর-নালিতাবাড়ী সড়কের মির্জাপুর এলাকায় বিপরীত দিক থেকে আসা একটি দ্রুতগতির ট্রাকের মুখোমুখি সংঘর্ষ হয়। এতে সিএনজি অটোরিকশাটি দুমড়ে-মুচরে সড়কের পাশে ছিটকে পড়ে।

এ ব্যাপারে শেরপুর সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আব্দুল্লাহ-আল মামুন জানান, খবর পেয়ে পুলিশ ও ফায়ার সার্ভিস ঘটনাস্থলে পৌঁছে হতাহতদের উদ্ধার করে জেলা সদর হাসপাতালে পাঠিয়েছে। ঘাতক ট্রাকটি আটক করা হলেও চালক পালিয়ে গেছে। এ বিষয়ে প্রয়োজনীয় আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে।