Tuesday March2,2021

‘বর্তমান নির্বাচন কমিশন বিকলাঙ্গ, তারা এখন স্ক্র্যাচে ভর করে হাঁটছে। স্ক্র্যাচের উপর ভর করে হেঁটে নির্বাচন করতে পারবেন না। আপনাদেরকে নিজ শক্তিতে বলিয়ান হতে হবে। এজন্য নির্বাচন কমিশন আজকে আমাদের কাছে ঠুঁটো জগন্নাথে পরিণত হয়েছে।’

জাতীয় পার্টির মহাসচিব জিয়া উদ্দিন আহমেদ বাবলু শনিবার বিকেলে ঢাকা থেকে বিমানযোগে রংপুরে যাওয়ার পথে নীলফামারীর সৈয়দপুর বিমানবন্দরে সংক্ষিপ্ত বক্তব্যে এসব কথা বলেন।

তিনি আরো বলেন, ‘এ সরকার নির্বাচনের নামে তামাশা করছে। ভোটের নামে প্রহসন ও নির্যাতন চালাচ্ছে। তারা শুধু নৌকার প্রার্থীকে বিজয়ী করতে চায়। এ সরকারের আমলে জানমালের কোনো নিরাপত্তা নেই। মুখ খুললেই গুম, খুন ও মামলার শিকার হতে হয়। উন্নয়নের নামে হাজার হাজার কোটি টাকা লোপাট করা হচ্ছে।’

তিনি ক্ষমতাসীন দলের উদ্দেশে বলেন, ‘জনগণকে ভয় দেখিয়ে আন্দোলন দমিয়ে রাখতে পারবেন না। এদেশে জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান মরহুম পল্লীবন্ধু হুসেইন মুহাম্মদ এরশাদের আমলে প্রকৃত উন্নয়ন হয়েছে। এই যে সৈয়দপুর বিমানবন্দর বর্ধিতকরণ হচ্ছে। এরশাদের পরিকল্পিত উন্নয়নের পথ ধরেই তা সম্ভব হয়েছে। তার রাজনীতি ছিল উন্নয়নের রাজনীতি, সংস্কারের রাজনীতি, সহমর্মিতার রাজনীতি। তার সময় উন্নয়ন হয়েছে, কর্মসংস্থান হয়েছে, জনগণের ভাগ্যের পরিবর্তন হয়েছে।’

তিনি আরো বলেন, ‘অথচ এখন তার উল্টো পথে চলছে রাজনৈতিক দলগুলো। তারা নির্বাচন ব্যবস্থাকে ধ্বংস করে দিয়েছে। লুটপাটের রাজত্ব কায়েম করেছে। সরকার সন্ত্রাস ও দুর্নীতি বন্ধে ব্যর্থ হয়েছে। আমরা সন্ত্রাস চাই না, টেন্ডারবাজী চাই না, দখলবাজ চাই না, দলীয়করণ চাই না, ধর্ষণ নির্যাতন চাই না। আমরা চাই জাতীয় পার্টির নেতৃত্বে জাতীয় উন্নয়ন।’

বাবলু বলেন, ‘জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান গোলাম মোহাম্মদ কাদেরের নেতৃত্বে সারাদেশে পৌর নির্বাচনে জাতীয় পার্টি মনোনীত প্রার্থী দিয়েছে। জাতীয় পার্টি আগামী ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে প্রার্থী ঘোষণা করবে। আমরা এই সরকারকে জানিয়ে দিতে চাই, জিএম কাদেরের নেতৃত্বে আগামী নির্বাচনেও আমাদের পার্টি উত্তরাঞ্চলে সব কয়টি আসনে প্রার্থী দেবে।’

তিনি প্রশাসনকে উদ্দেশে করে বলেন, ‘এসপি-ডিসিদের দায়িত্ব হচ্ছে অবাধ, সুষ্ঠু নিরপেক্ষ নির্বাচন উপহার দেয়া। তাই প্রশাসনকে অনুরোধ করবো, আপনারা যে অবস্থায় থাকেন না কেন, আপনাদের উপর অর্পিত দায়িত্ব যথাযথভাবে পালন করবেন। কারণ আপনারা প্রজাতন্ত্রের কর্মচারী।’

এ সময় তার সাথে উপস্থিত ছিলেন, পার্টির অতিরিক্ত মহাসচিব (সিলেট) রেজাউল করিম ভূঁইয়া, নীলফামারী-৪ আসনের সংসদ সদস্য আহসান আদেলুর রহমান, যুব সংহতি কেন্দ্রীয় কমিটির আহ্বায়ক হোসেন মকবুল মোহাম্মদ শাহরিয়ার আসিফ, কেন্দ্রীয় জাতীয় পার্টির ছাত্র বিষয়ক সম্পাদক ফয়সাল দিদার দিপু, সৈয়দপুর উপজেলা আহ্বায়ক ও পৌর মেয়র প্রার্থী সিদ্দিকুল আলম সিদ্দিক, উপজেলা কমিটির সেক্রেটারি জিএম কবির মিঠু, পৌর সদস্য সচিব আলতাফ হোসেন, জেলা যুব সংহতির সভাপতি রওশন মাহানামা, সেক্রেটারি ওবায়দুর রহমান ভুট্টু, ছাত্রসমাজ কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য রক্সি খান প্রমুখ।

জিয়া উদ্দিন বাবলু পরে রংপুরের উদ্দেশে সড়কপথে রওনা দেন। সেখানে জাতীয় পার্টির প্রতিষ্ঠাতা মরহুম এইচ এম এরশাদের কবর জিয়ারত করাসহ যুব সংহতির বিভাগীয় কর্মসূচিতে অংশ নিবেন।