Sunday March7,2021

দেশের প্রথম নারী প্রকৌশলী খালেদা শাহারিয়ার কবির ডোরা মারা গেছেন (ইন্না লিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজিউন)। তিনি ডোরা রহমান নামেই বেশি পরিচিত।

আজ বুধবার ভোররাত ৪টা ৪৫ মিনিটে রাজধানী ঢাকায় তিনি শেষ নিশ্বাস ত্যাগ করেন।

এক শোকবার্তায় রিটায়ার্ড ইঞ্জিনিয়ার অ্যাসোসিয়েশন (আরইএ) বিডব্লিউডিবি এ কথা জানিয়েছে। তিনি সংগঠনটির সভাপতি হিসেবে দায়িত্ব পালন করছিলেন। শোকবার্তায় মরহুমার বিদেহী আত্মার মাগফিরাত কামনা এবং তার শোকসন্তপ্ত পরিবারের প্রতি সমবেদনা জানিয়েছে রিটায়ার্ড ইঞ্জিনিয়ার অ্যাসোসিয়েশন (আরইএ) বিডব্লিউডিবি।

ডোরা রহমানের বাবা মো. কবির উদ্দিন দেশভাগের পর কলকাতা থেকে বাংলাদেশে আহসানউল্লাহ ইঞ্জিনিয়ারিং কলেজের পুরকৌশল বিভাগের শিক্ষক হিসেবে যোগ দেন। এটাই ১৯৬২ সালে পূর্ব পাকিস্তান প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় (ইপুয়েট) এবং দেশ স্বাধীন হওয়ার পর এটাই বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের (বুয়েট) হয়।

১৯৬৮ সালে খালেদা শাহারিয়ার কবির ও শিরীন সুলতানা বাংলাদেশের প্রথম নারী হিসেবে ইপুয়েট থেকে পুরকৌশলে স্নাতক ডিগ্রি লাভ করেন।

সংখ্যায় কম হওয়ার কারণে ওই সময় ইপুয়েটে মেয়েদের ভর্তি নেওয়া হতো না। রীতিমতো আইনি ব্যবস্থা নেওয়ার হুমকি দিয়ে তারা পুরকৌশল বিভাগে ভর্তি হন।

১৯৬৯ সালে খালেদা শাহারিয়ার প্রকৌশলী মো. আমিনুর রহমানকে বিয়ে করেন। ১৯৭০ সালে পানি উন্নয়ন বোর্ডের সহকারী প্রকৌশলী হিসেবে যোগ দিয়ে ডোরা রহমান ২০০৪ সালে অতিরিক্ত মহাপরিচালক হিসেবে অবসর নেন।

স্বামী ২০১৪ সালে মারা যাওয়ার পর ধানমন্ডির বাসায় একাই থাকতেন ডোরা রহমান। একমাত্র সন্তান শিখা রহমান বুয়েটের প্রভাষক ছিলেন। তিনি বর্তমানে যুক্তরাষ্ট্রের ক্যালিফোর্নিয়া স্টেট ইউনিভার্সিটির পুরকৌশল বিভাগের অধ্যাপক।