Saturday February27,2021

সমাজকল্যাণ মন্ত্রী নুরুজ্জামান আহমেদ বলেছেন, সরকার সামাজিক নিরাপত্তা কর্মসূচির আওতায় দেশের ৮৮ লাখ ৫০ হাজার মানুষকে বিভিন্ন প্রকার ভাতা প্রদান করছে। নতুন বছরে সামাজিক নিরাপত্তার টাকা মোবাইলের মাধ্যমে দেওয়া হবে।

বৃহস্পতিবার (৩১ ডিসেম্বর) মন্ত্রণালয়ের সভাকক্ষে জিটুপি (গভর্নমেন্ট টু পারসন) পদ্ধতিতে সরাসরি সুবিধাভোগীদের কাছে ভাতা পাঠানোর জন্য মোবাইল ফাইন্যান্সিয়াল সার্ভিস প্রতিষ্ঠান হিসেবে ‘নগদ’ ও ‘বিকাশ’ এবং সমাজ সেবা অধিদপ্তরের মধ্যে চুক্তি স্বাক্ষর অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে মন্ত্রী এসব কথা বলেন।

সমাজকল্যাণ মন্ত্রণালয়ের সচিব মোঃ জয়নুল বারীর সভাপতিত্বে চুক্তি স্বাক্ষর অনুষ্ঠানে সমাজসেবা অধিদফতরের মহাপরিচালক মোঃ রফিকুল ইসলাম মোবাইল ফাইন্যান্সিয়াল সার্ভিস (Mobile Financial Service) প্রতিষ্ঠান ‘নগদ’ ও ‘বিকাশ’ এর কর্মকর্তাগণ উপস্থিত ছিলেন।

অনুষ্ঠানে সমাজকল্যাণমন্ত্রী নুরুজ্জামান আহমেদ আরো বলেন, স্বাধীনতার মহান স্থপতি, সর্বকালের সর্বশ্রেষ্ঠ বাঙালি, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান জাতিসত্তা বিকাশের প্রধান ব্যক্তিত্ব। বাঙালি জাতিকে যিনি মর্যাদার আসনে প্রতিষ্ঠিত করে বাঙালি জাতিসত্তাকে উন্মোচিত করেছেন তারই সুযোগ্য কন্যা মাদার অভ্ হিউম্যানিটিখ্যাত প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। ১৯৯৬ সালে দেশের দায়িত্ব নিয়ে তিনি এদেশের গরিব, দুঃখী, অসহায়, মানুষের জন্য বয়স্ক ভাতা, বিধবা ভাতা প্রবর্তন করেন। তিনিই মানুষের কল্যাণের জন্য এ দেশে বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নকে সফলভাবে বাস্তবায়নের নিমিত্ত নানাবিধ কার্যক্রম সফলভাবে বাস্তবায়ন করে যাচ্ছেন। প্রধানমন্ত্রীর প্রত্যাশা অনুযায়ী এবং তার নির্দেশনা অনুযায়ী প্রায় ১ কোটি মানুষ সমাজকল্যাণের মাধ্যমে ভাতা পাচ্ছে।

মন্ত্রী বলেন, প্রধানমন্ত্রীর প্রত্যাশা পূরণের লক্ষ্যে আজকের এই চুক্তি। প্রধানমন্ত্রী যে লক্ষ্য ও উদ্দেশ্য নিয়ে বাংলাদেশকে সারাবিশ্বের দরবারে রোল মডেল হিসেবে প্রতিষ্ঠিত করেছেন, তার আরেক নতুন ধারার সূচনা হলো আজকে।

উল্লেখ্য, সমাজকল্যাণ মন্ত্রণালয় চারটি কর্মসূচির আওতায় ৪৯ লাখ মানুষকে বয়স্ক ভাতা, ২০ লাখ ৫০ হাজার মানুষকে বিধবা ও স্বামী নিগৃহীতা ভাতা, ১৮ লাখ প্রতিবন্ধী ভাতা, ১ লাখ প্রতিবন্ধী শিক্ষার্থীর জন্য শিক্ষাবৃত্তির টাকা প্রদান করে। মোট ৮৮ লাখ ৫০ হাজার সুবিধাভোগী রয়েছে, এতে টাকার পরিমাণ ৫ হাজার ৮৮৫ কোটি ৬৪ লাখ টাকা। এ বছর থেকে সরাসরি জিটুপি পদ্ধতিতে সুবিধাভোগীর মোবাইল অ্যাকাউন্টে ভাতা পাঠানো হবে।