Friday March5,2021

পার্বত্য চট্টগ্রাম নিয়ে এখনো ষড়যন্ত্র হয় বলে মন্তব্য করেছেন তথ্যমন্ত্রী ড. হাসান মাহমুদ। তিনি আরো বলেন, পার্বত্য চট্টগ্রাম নিয়ে অতীতে অনেক ষড়যন্ত্র হয়েছে এখনো হয়। দেশের শান্তিতে ও উন্নয়নে যারা খুশী নয়, পার্বত্য অঞ্চলের অঞ্চলের উন্নয়নেও তারা খুশি নয়। পার্বত্য শান্তিচুক্তি করে বিপদগামীদের স্বাভাবিক জীবনে ফিরিয়ে এনেছে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। তার দক্ষ নেতৃত্বের কারণে পাহাড়ে শান্তি ফিরে এসেছে। তাই ষড়যন্ত্রকারীদের কোনো অশুভ তৎপরতা সফল হবে না।

সোমাবার সকালে রাঙ্গামাটির সাজেকে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকী উপলক্ষে বঙ্গবন্ধু সিএইচটি ডে মাউন্টেনবাইক চ্যালেঞ্জ প্রতিযোগিতার উদ্বোধন করতে গিয়ে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তথ্যমন্ত্রী এসব কথা বলেন।

পার্বত্য চট্টগ্রাম বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের উদ্যোগে রাঙ্গামাটির সাজেকে পার্বত্য চট্টগ্রাম উন্নয়ন বোর্ডের ব্যবস্থাপনায় প্রতিযোগিতা শুরু হয়েছে। এতে সাইক্লিস্টরা ৩০০ কি: মি: পাহাড়ি পথ পাড়ি দেবে।

পার্বত্য মন্ত্রণালয়ের সচিব সফিকুল আহম্মদের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে খাদ্য মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি রাঙ্গামাটির সংসদ সদস্য দীপংকর তালুকদার, শরনার্থী বিষয়ক টাস্কফোর্স চেয়ারম্যান কুজেন্দ্র লাল ত্রিপুরা এমপি, মহিলা সংসদ সদস্য বাসন্তী চাকমা, পার্বত্য চট্টগ্রাম বিষয়ক মন্ত্রণালয় সচিব মো: সফিকুল আহম্মদ, রাঙ্গামাটি পার্বত্য জেলা পরিষদ চেয়াম্যান অংসুই চৌধুরী, খাগড়াছড়ি জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান মংসুইপ্রু চৌধুরী, রাঙ্গামাটি জেলা প্রশাসক একেএম মামুনুর রশিদ, রাঙ্গামাটি পুলিশ সুপার মীর মোদ্দাছছের হোসেনসহ রাঙ্গামাটি ও খাগড়াছড়ির জনপ্রতিনিধি স্থানীয় গন্যমাণ্য ব্যক্তিরা উপস্থিত ছিলেন।

বঙ্গবন্ধু ট্যুর ডি সিএইচটি এমটিবি চ্যালেঞ্জ প্রতিযোগিতার প্রথম দিনে উদ্বোধনের পর বিকেলে সাইক্লিস্টসরা রাঙ্গামাটি সাজেক থেকে যাত্রা শুরু করে খাগড়াছড়ি হয়ে রাঙ্গামাটি চিংহ্লামং চৌধুরী মারী স্টেডিয়ামে অবস্থান করবেন। পরদিন সাইক্লিস্টসরা রাঙ্গামাটি থেকে বান্দরবান স্টেডিয়াম উদ্দেশে যাত্রা করবেন। তৃতীয় দিনে বান্দরবান থেকে থানচি উচ্চ বিদ্যালয়ে গিয়ে প্রতিযোগিতা শেষ হবে এবং পুরস্কার বিতরণ করা হবে।