Sunday March7,2021

শুধু শ্বাসনালি ও ফুসফুস নয়, মস্তিষ্কেও হানা দিচ্ছে করোনাভাইরাস। আক্রমণ করছে কেন্দ্রীয় স্নায়ুতন্দ্রকে। তার ফলেই হারিয়ে যাচ্ছে স্বাদ-গন্ধ। মাথা ব্যথা, পেশির যন্ত্রণার মতো নানা উপসর্গে ভুগছেন অনেকে। বিষয়টি আগে জানা গেলেও কী ভাবে ভাইরাস মস্তিষ্কে পৌঁছচ্ছে, তা নিয়ে এত দিন স্পষ্ট কিছু জানা যায়নি। সম্প্রতি গবেষণা চালিয়ে বিজ্ঞানীরা জানিয়েছেন, নাক দিয়েই ভাইরাস পৌঁছে যাচ্ছে আমাদের মস্তিষ্কে। ফলে এই ধরনের উপসর্গে ভুগছেন মানুষ।

জার্মানির বার্লিন বিশ্ববিদ্যালয়ে এক গবেষণায় সম্প্রতি এমনই তথ্য উঠে এসেছে। নেচার নিউরো-সায়েন্সেস পত্রিকায় প্রকাশিত হয়েছে ওই রিপোর্ট। পরীক্ষা চলাকালীন কোনও কোনও রোগীর ন্যাসো ফ্যারিংস-এ ভাইরাসের কিছু উপাদান মিলেছে। একই উপাদান মিলেছে ওই রোগীর মস্তিষ্কেও। সেই সূত্র ধরেই বিজ্ঞানীরা এই সিদ্ধান্তে এসেছেন।

এ দিকে আমেরিকায় করোনা সংক্রমণ এখন লাগামছাড়া। রাশ নেই মৃত্যুতেও। এই জরুরি পরিস্থিতির কথা মাথায় রেখে আমেরিকার ওষুধ প্রস্তুতকারী সংস্থা ফাইজ়ার এবং মডার্না ‘ফুড অ্যান্ড ড্রাগ অ্যাডমিনিস্ট্রেশন’ (এফডিএ)-এর কাছে তাদের তৈরি সম্ভাব্য ভ্যাকসিনটিকে দ্রুত ছাড়পত্র দেওয়ার জন্য আবেদন জানিয়েছিল। জল্পনা ছিল, বড়দিনের আগেই মিলতে পারে অনুমতি।

সোমবার দেশের স্বাস্থ্যসচিব অ্যালেক্স আজ়ার সেই জল্পনায় সরকারি সিলমোহর দিয়েছেন। তিনি জানিয়েছেন, বড়দিনের আগে দুটি ভ্যাকসিনই আসতে পারে। ফাইজ়ারকে ছাড়পত্র দেওয়ার বিষয়ে আগামী ১০ ডিসেম্বর আলোচনায় বসতে চলেছেন এফডিএ-এর বিশেষজ্ঞরা। অনুমতি পাওয়ার দিন কয়েকের মধ্যেই সেটি হাতের মধ্যে চলে আসবে। তার পরের সপ্তাহেই ছাড় মিলবে মডার্নারও। আজ়ার জানান, প্রচলিত টিকা বণ্টন পদ্ধতিতেই বিভিন্ন প্রদেশে ভ্যাকসিন পৌঁছে দেওয়া হবে। কোন কোন ক্ষেত্র আগে টিকা পাবে, তা ঠিক করবে স্থানীয় প্রশাসন। সুত্র, আনন্দবাজার পত্রিকা ।