করোনা নিয়ে ট্রাম্পের ‘বিভ্রান্তিকর পোস্ট’, ব্যবস্থা নিল ফেসবুক, টুইটার

মার্কিন রাষ্ট্রপতি ডোনাল্ড ট্রাম্পের ‘বিভ্রান্তিকর পোস্ট’এর বিরুদ্ধে এবার ব্যবস্থা নিতে চলেছে ফেসবুক ও টুইটার কর্তৃপক্ষ। করোনা নিয়ে প্রেসিডেন্টের শেয়ার করা তথ্যে তাদের বিধি লঙ্ঘন হয়েছে বলে মনে করছে জুকেরবার্গের সংস্থা। ট্রাম্প জানিয়েছিলেন কোভিড ১৯ ফ্লু-এর মতোই।
ইতিমধ্যেই ফেসবুক ট্রাম্পের ওই পোস্টটিকে ডাউন করে দিয়েছে। তবে তার আগেই ওই পোস্টটি ২৬,০০০ বার শেয়ার করা হয়েছে বলে দেখাচ্ছে ফেসবুকের মেট্রিক টুল।
সংস্থার এক মুখপাত্র রয়টার্সকে জানিয়েছেন, আমরা করোনা সংক্রান্ত যাবতীয় ভুল তথ্য মুছে ফেলি।
সাধারণত ফেসবুক রাজনীতিবিদদের থার্ড পার্টি ফ্যাক্ট চেকিং প্রোগ্রাম থেকে ছাড় দেয়। আবার মার্কিন রাষ্ট্রপতির পোস্টের বিরুদ্ধেও খুব কম পদক্ষেপ নিতে দেখা যায় ফেসবুককে। কিন্তু এবার সেটাই করল বিশ্বের বৃহত্তম সোশ্যাল মিডিয়া সংস্থা।
তবে এই প্রথম না, এর আগেও অগস্ট মাসে করোনভাইরাস নিয়ে ভুল তথ্য দেওয়ার জন্য ট্রাম্পের পোস্ট সরিয়ে দিয়েছিল ফেসবুক। সেই পোস্টে একটি ভিডিও শেয়ার করে ট্রাম্প জানিয়েছিলেন, শিশুরা প্রায় করোনা অনাক্রম্য।
উল্লেখ্য, চার দিনের জরুরি চিকিৎসার পরে সোমবার হাসপাতাল থেকে হোয়াইট হাউসে ফিরেছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। হোয়াইট হাউসে ফিরেই নিজের মাস্ক খুলে ফেলে তিনি জানান, খুব শিগগিরই নির্বাচনী প্রচারে অংশ নেবেন। পাশাপাশি ট্রাম্প টুইট করেন ‘করোনাকে নিয়ে ভয় পাবেন না।’
করোনা হওয়ার পর থেকেই একাধিকবার বিতর্কে জানিয়েছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট। অভিযোগ ডোনাল্ড ট্রাম্প করোনায় আক্রান্ত হওয়ার কথা জানতে পেরেও তা গোপন করতে চেয়েছিলেন। মার্কিন দৈনিক ওয়াল স্ট্রিট জার্নাল এমন খবর জানিয়েছে।
রিপোর্টে উল্লেখ করা হয়, প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প তার করোনাভাইরাস পজিটিভ হওয়ার রিপোর্ট বৃহস্পতিবার হাতে পেয়েছিলেন। তখন তিনি বিষয়টি গোপন করতে চেয়েছিলেন। এছাড়াও সামনে নির্বাচনের কথা মাথায় রেখে সমর্থকদের চাঙ্গা রাখার জন্য রবিবার ওয়াল্টার রিড হাসপাতালের স্যুট থেকে কিছু সময়ের জন্য বাইরে বেরিয়ে এসে মোটর গাড়িতে উঠে হাত নাড়ান ট্রাম্প। একেবারে প্রটোকল ভেঙে হাসপাতাল থেকে বেরিয়ে আসেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট।
এইভাবে খোদ প্রেসিডেন্ট করোনা নিয়ম ভঙ্গ করায় ক্ষুব্ধ চিকিৎসকরা। শুধু ক্ষুব্ধ হওয়া নয় প্রকাশ্যে ক্ষোভ দেখিয়েছেন বেশ কয়েকজন ডাক্তাররা। ট্রাম্পের এমন কাজে চমকে গিয়েছেন স্থানীয় মানুষজনও। কারণ ট্রাম্পের এমন কর্মসূচির কোনও পরিকল্পনা ছিল না। ফলে হঠাৎ এতগুলো গাড়ি নিয়ে করোনা আক্রান্ত ট্রাম্পের শোভাযাত্রা দেখে চমকে যান অনেকেই।

Leave a Reply

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

%d bloggers like this: