সাংসদ আবুল হাসনাত আবদুল্লাহর করোনা নেগেটিভ

বরিশাল-১ আসনের সংসদ সদস্য ও মন্ত্রী আবুল হাসানাত আবদুল্লাহর করোনা পরীক্ষার ফল নেগেটিভ এসেছে। এরপর তার হার্টের চিকিৎসা শুরু হয়েছে।

এর আগে পার্বত্য চট্টগ্রাম চুক্তি বাস্তবায়ন পরিবীক্ষণ কমিটির এই প্রধান অসুস্থ হয়ে রাজধানীর স্কয়ার হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন।

তার অবস্থা এতোটাই গুরুতর যে তাকে এখন হাসপাতালের আইসিইউতে স্থানান্তরিত করা হয়েছে। জেলা আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক তালুকদার মো: ইউনুস এই তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

তিনি বলেন, মঙ্গলবার রাত সোয়া ৮টার দিকে সংসদ ভবনের বাসভবনে অসুস্থহয়ে পড়লে ৯টার দিকে মন্ত্রীকে ঢাকার স্কয়ার হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। বর্তমানে তাকে নিবিড় পর্যবেক্ষণ কেন্দ্রে (আইসিউ) রেখে চিকিৎসা দেয়া হচ্ছে। তার সুস্থতা কামনায় দলের পক্ষ থেকে দোয়া কামনা করা হয়েছে।

সূত্র জানায়, রাত ৯টা নাগাদ আবুল হাসানাত আবদুল্লাহ বাসায় শ্বাসকষ্ট অনুভব করেন। এক পর্যায়ে তার অক্সিজেন লেভেল ৩১-এ নেমে আসে। হাসপাতালের আইসিইউতে নেয়ার পর তার অক্সিজেন লেভেল স্বাভাবিক হয়। তার ফুসফুসে কফ জমেছ বলে সন্দেহ করা হচ্ছে।

এছাড়া করোনা উপসর্গ থাকায় তার নমুনাও সংগ্রহ করা হয়েছে। বুধবার দুপুর ১২টা নাগাদ রিপোর্ট পাওয়া যাবে বলে আশা করা হচ্ছে।

তাকে বর্তমানে হাসপাতালের করোনা ইউনিটের নিবিড় পরিচর্যা কেন্দ্রে (আইসিইউ) রাখা হয়েছে। সেখানে তার কাছে আছেন একমাত্র মেয়ে কান্তা আব্দুল্লাহ।

প্রসঙ্গত, ৭৫ বছর বয়সের আবুল হাসানাত আবদুল্লাহ বরিশাল-১ আসনের নির্বাচিত সংসদ সদস্য। তিনি পার্বত্য চট্টগ্রাম শান্তিচুক্তি বাস্তবায়ন ও পরিবীক্ষণ কমিটির আহ্বায়কও।

এর আগের সরকারের সময়ে হাসানাত আবদুল্লাহ জাতীয় সংসদের চিফ হুইপ ছিলেন। তার বড় ছেলে সাদিক আবদুল্লাহ বরিশাল সিটি কর্পোরেশনের মেয়র এবং মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণসম্পাদক।

১৯৭৫ সালেভয়াল কালোরাতেনিহত শহীদ আব্দুররব সের‌নিয়াবাতের ছেলে আবুল হাসানাত আবদুল্লাহ এবং ওই রাতের প্রত্যক্ষ সাক্ষী তিনি।

চলতি বছরের ৭ জুনে তার স্ত্রী সাহান আরা আবদুল্লাহ ইন্তেকাল করেন।

Leave a Reply

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

%d bloggers like this: