ছাত্রাবাসে গণধর্ষণ: সাইফুর-অর্জুন ৫ দিনের রিমান্ডে

সিলেটের মুরারিচাঁদ (এমসি) কলেজ ছাত্রাবাসে স্বামীকে আটকে রেখে গৃহবধূ গণধর্ষণের মামলার প্রধান আসামি সাইফুর রহমান এবং ৪ নম্বর আসামি অর্জুন লস্করের ৫ দিনের রিমান্ডে মঞ্জুর করেছেন আদালত।

সোমবার (২৮ সেপ্টেম্বর) দুপুরে ৬ আসামির মধ্যে এ দুইজনকে সিলেট মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট ২য় আদালতের বিচারক সাইফুর রহমানের আদালতে তোলা হয়।

এসময় মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা তাদের সাতদিনের রিমান্ডে নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদের আবেদন করলে আদালত ৫ দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন।

সিলেট মেট্রোপলিটন পুলিশের সহকারী কমিশনার (প্রসিকিউশন) অমূল্য কুমার চৌধুরী এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবী অতিরিক্ত সহকারী কৌঁসুলি (এপিপি) খোকন কুমার দত্ত জানান, আদালতে আসামিদের পক্ষে কোনো আইনজীবী ছিলেন না। আসামিরা আদালতে দায় স্বীকার করেছেন। পরে আদালত শুনানি শেষে এ নির্দেশ দেন।

এর আগে রোববার (২৭ সেপ্টেম্বর) সকাল ১০টায় সুনামগঞ্জের ছাতক উপজেলার নোয়ারাই ঘাট থেকে গণধর্ষণ মামলার প্রধান আসামি সাইফুরকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ।

এর কিছুক্ষণ পরই হবিগঞ্জের মাধবপুর উপজেলায় গোয়েন্দা পুলিশের হাতে ধরা পড়েন এ মামলার চতুর্থ আসামি অর্জুন লস্কর। পরে তাকে সিলেট মেট্রোপলিটন পুলিশের কাছে হস্তান্তর করা হয়।

এরপর গতকাল রাতে হবিগঞ্জ থেকে মামলার আরও দুই আসামি শাহ মাহবুবুর রহমান রনি এবং রবিউলকে গ্রেপ্তার করা হয়। এছাড়া এজাহারে থাকা অজ্ঞাতনামা আসামি রাজনসহ আরও দুইজনকেও জেলার ফেঞ্চুগঞ্জ থেকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।

এ নিয়ে মামলায় এজাহারে থাকা চারজনসহ মোট ৬ জনকে গ্রেপ্তার করা হয়। আর পলাতক রয়েছেন তারেক এবং মাহফুজুর নামের দুইজন।

উল্লেখ্য, এমসি কলেজ ক্যাম্পাসে বেড়াতে আসা দম্পতির স্বামীকে আটকে রেখে শুক্রবার (২৫ সেপ্টেম্বর) রাত সাড়ে ৯টার দিকে কলেজ ছাত্রাবাসে নববধূকে গণধর্ষণ করা হয়। এ ঘটনায় ৬ জনের নাম উল্লেখসহ ৯ জনের বিরুদ্ধে মামলা করেছেন ওই গৃহবধূর স্বামী।

Leave a Reply

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

%d bloggers like this: