জাতিসংঘের অধিবেশন : সংহতির ওপর জোর দিলেন মহাসচিব

জাতিসংঘের ৭৫ বছরের ইতিহাসে এই চিত্র কখনোই দেখা যায়নি। নিউ ইয়র্কে জাতিসংঘ সদর দপ্তরের বিশাল জেনারেল অ্যাসেম্বলি হলটিতে সদস্য রাষ্ট্রগুলোর সরকার প্রধানদের জন্য সংরক্ষিত আসনগুলো ফাঁকা। বিশ্বে করোনা মহামারির প্রভাব কতোটা ভয়াবহ সেই চিত্রটিই যেন চোখে আঙুল দিয়ে দেখিয়ে দিচ্ছে অ্যাসেম্বলি হল। প্রায় জনশূন্য হলটিতে মঙ্গলবার সংস্থার ৭৫তম অধিবেশনের উদ্বোধনী ভাষণ দিয়েছেন মহাসচিব অ্যান্টনিও গুতেরেস।

১৯৩ সদস্য রাষ্ট্রের শূন্য আসনগুলোর দিকে চেয়ে গুতেরেস বলেছেন, এই করোনা ‘মহামারি কেবল সতর্কবার্তাই নয়, বরং আগামীতে যেই চ্যালেঞ্জগুলো আসবে তার পোশাকি মহড়া।’

তিনি বলেছেন, ‘আন্তঃসংযোগীয় একটি বিশ্বে এখন একটি সাধারণ সত্যকে স্বীকৃতি দেওয়ার অনেক বড় সময় এখন : সহিংসতাই আত্মস্বার্থ। আমরা যদি এই বিষয়টি উপলব্ধি করতে ব্যর্থ হই, তাহলে সবাই পরাজিত হবে।’

বিশ্বের এই সংকটকালে সংহতির কোনো বিকল্প নেই বলে মন্তব্য করেছেন জাতিসংঘ মহাসচিব। বিশেষ করে করোনা সংকট মোকাবিলায় যেসব দেশের সামর্থ্য খুবই কম তাদের পাশে দাঁড়ানো জরুরি।

গুতেরেস বলেন, ‘জনতোষণবাদ ও জাতীয়তাবাদ ব্যর্থ হয়েছে। যারা ভাইরাসকে নিয়ন্ত্রণ করার চেষ্টা করেছে তারা প্রায়ই বিষয়টিকে আরও খারাপ পর্যায়ে নিয়ে গেছে।’

করোনা মহামারির কারণে ইতিহাসে প্রথমবারের ভার্চুয়াল প্ল্যাটফর্মে হচ্ছে এবারের সাধারণ অধিবেশন। নিউ ইয়র্ক সময় সকাল ৯টায় এই অধিবেশন শুরু হয়। মহামারির কারণে সদস্য দেশগুলো এবারের অধিবেশনে সরাসরি যোগ দিচ্ছে না।

Leave a Reply

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

%d bloggers like this: