মাদ্রাসাছাত্রীকে ধর্ষণের অভিযোগে পুলিশ সদস্য কারাগারে

ময়মনসিংহের ঈশ্বরগঞ্জে এক মাদ্রাসাছাত্রীকে ধর্ষণের পর পালানোর সময় এক পুলিশ সদস্যকে আটক করে কারাগারে পাঠানো হয়েছে। অভিযুক্ত ওই পুলিশ সদস্য উপজেলার বড়হিত ইউনিয়নের রঘুনাথপুর গ্রামের আজিজুল হকের ছেলে এজাদুল হক রতন (২২)। বর্তমানে সে গাজীপুরের পূবাইল থানায় পুলিশের কনস্টেবল হিসেবে কর্মরত রয়েছে।

এ ঘটনায় বুধবার সন্ধ্যায় মামলা দায়েরের পর তাকে আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠায় পুলিশ। স্থানীয় ও পুলিশ সূত্র জানায়, পুলিশ সদস্য রতনের সাথে ফেসবুকে পরিচয় হয় পাশের গ্রামের রাজিবপুর ইউনিয়নের একটি গ্রামের বাসিন্দা ওই ছাত্রীটির। পরিচয়ের সূত্র ধরে তারা প্রেমের সম্পর্কে জড়ায়। এরপর বিয়ের আশ্বাসে ছাত্রীটির সাথে সম্পর্কে জড়ায় রতন।

সর্বশেষ মঙ্গলবার রাতে মেয়েটিকে তাদের বাড়ির পাশের এটি ঝোঁপে নিয়ে ধর্ষণের সময় স্থানীয়রা ধাওয়া দিয়ে আটক করে রতনকে। পরে রাত ২টার দিকে ঈশ্বরগঞ্জ থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে অভিযুক্ত পুলিশ সদস্য ও ভুক্তভোগী ছাত্রীকে উদ্ধার করে থানায় নিয়ে আসে। এসময় পুলিশের কাছে ওই ছাত্রী তাকে ধর্ষণের অভিযোগ করলেও তা অস্বীকার করেছে অভিযুক্ত পুলিশ সদস্য রতন।

ঈশ্বরগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. মোখলেছুর রহমান জানান, খবর পেয়ে রাতেই ঘটনাস্থল থেকে ওই পুলিশ সদস্য ও মেয়েটিকে উদ্ধার করে নিয়ে আসা হয়। পরে রতনের বিরুদ্ধে মামলা দায়েরের পর বুধবার সন্ধ্যায় তাকে কারাগারে প্রেরণ করা হয়েছে।

Leave a Reply

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

%d bloggers like this: