নেয়ামত উল্যা ভূঁইয়া’র কবিতা ‘ক্ষমতার  মানে’

নেয়ামত উল্যা ভূঁইয়া’র কবিতা

।  ক্ষমতার  মানে  ।

 

ক্ষমতা  মানেই আত্ম-মমতায়  সমতার চিতা  জ্বালা,

নিজ রাজপথ বানাতে অন্যের পিঠজুড়ে পিচ ঢালা

স্লোগানের ভাষা  বাতলে দিয়ে  লাঠি হাতে কাছে  ঘোরা,

মতের জন্যে টাকা  তোড়া  তোড়া,অমতের পাও খোঁড়া।

 

ক্ষমতা  মানেই  অমতের  কানে কষে দুই চড় মারা,

বাচালের ঠোঁটে তালা ঝুলানোর  নব বিধানের  ধারা।

ভিন্নমতের  তরতাজা দেহ লাশ করে ফেলে দেয়া,

খোলা চোখে চোখে অন্ধত্বের  ভাইরাস  ঢেলে দেয়া।

বস্তিবাসিকে আতশ বাতিতে খানিকটা আলো দেয়া,

পরের  খেয়ায় কুড়োল-ঘা মেরে, কূলে  বাঁধা নিজ খেয়া।

ফেলানিকে নিয়ে আলোচনা হলে বিব্রত বোধ করা,

যার কূটচালে ক্ষমতার  বল; তার  ঋণ  শোধ করা।

 

ক্ষমতা  মানেই,  বস্তির চালা মাটিতে গুঁড়িয়ে দেয়া,

কবিতার পাতা  কুঁচিকুঁচি করে হাওয়ায় উড়িয়ে দেয়া।

ক্ষমতা  মানেই  সমতার  ঘাড়ে দু’ ঘায়ের বাহাদুরি,

নাটাইটা  কেটে আকাশে  ওড়ানো ইচ্ছে-ঘোড়ার ঘুড়ি।

 

ক্ষমতা  মানেই, বাঁকা  আঙুল, স্বভাব  ভাষাও  বাঁকা,

অশ্রু থেকে  জলরঙ নিয়ে পুলকের  ছবি আঁকা।

পাখির গানে  ফুলের ঘ্রাণে খাজনা আরোপ করা,

বিরোধীকে  বিষ-দংশন করে  ওঝার  টোপর পরা।

দেয়ালের গায়ে  চিকামারা দেখে হাসিমুখ করা হাড়ি,  

হাসির  উপর  নিষেধাজ্ঞার কারফিউ করা জারি

পায়রা-দলের বাকুম বাকের  আসরকে করা পণ্ড,

মশাল মিছিলের  আগুনকে দেয়া সশ্রম কারাদণ্ড।

 

Leave a Reply

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

%d bloggers like this: