‘ফুটবল ইতিহাসের বড় বিশ্বাসঘাতক মেসি’

‘বার্সেলোনা সমর্থকদের এমনটা প্রাপ্য নয়। মেসি তাদের সঙ্গে প্রতারণা করছে।’- লিওনেল মেসির বার্সেলোনা ছাড়ার ঘোষণা ছাড়ার পর এভাবেই নিজের অভিব্যক্তি প্রকাশ করেন স্প্যানিশ সাংবাদিক এদু আগুইরি।

প্রায় দুই দশক আগে লা মেসিয়াতে যোগদানের মধ্য দিয়ে কাতালান ক্লাবটির সঙ্গে সম্পর্ক স্থাপন করেন মেসি। এরপর বার্সার মূল দল হয়ে পৃথিবীর সেরা খেলোয়াড়ের তকমা নিজের করে নিয়েছেন আর্জেন্টাইন এই তারকা। এই ক্লাবের সঙ্গে যেন আত্মার সম্পর্ক গড়ে উঠেছিল ৩৩ বছর বয়সী মেসির।

ফুটবল ক্যারিয়ারটা বার্সাতেই শেষ করবেন বলে বিভিন্ন সময় জানিয়ে গেছেন মেসি। বোর্ডের সঙ্গে মাঝে মাঝে ঝামেলা হলেও ক্লাব ছাড়ার কথা কখনো বলেননি ছয়বারের ব্যালন ডি’অর জয়ী এই তারকা। তবে এবার যেন পাল্টে গেছে মেসির সুর। শৈশবের ক্লাব ছাড়তে চাইছেন তিনি। কোনোভাবেই থাকতে চাইছেন না কাতালান ক্লাবটিতে। এমনকি সভাপতি জোসেফ মারিয়া বার্তোমেউ বিদায় দিলেও বার্সার জার্সি আর গায়ে চড়াবেন না বলে জানিয়েছেন মেসি।

ইতিমধ্যে ম্যানচেস্টার সিটিতে যোগ দেওয়ার বিষয়ে সম্মতিও জানিয়েছেন বলে খবর রটেছে। কিন্তু মেসি বার্সেলোনা ছেড়ে যাক, তা কখনোই চায় না ক্লাবটির ভক্ত-সমর্থকরা। স্প্যানিশ ক্রীড়া সাংবাদিক এদু আগুইরিও তার ব্যতিক্রম নয়। আর তাই মেসির বার্সেলোনা ছাড়াটা ফুটবল ইতিহাসের বড় বিশ্বাসঘাতকতা বলে দাবি করেছেন এই সাংবাদিক।

স্প্যানিশ টিভি প্রোগ্রাম ‘এল চিরিংগুইতো দে ইয়োগোনেস’-এ আগুইরি বলেন, ‘আমার কাছে মেসির বার্সেলোনা ছাড়াটা হবে ফুটবল ইতিহাসের বড় বিশ্বাসঘাতকতা। বার্সেলোনা সমর্থকদের এমনটা প্রাপ্য নয়। মেসি তাদের সঙ্গে প্রতারণা করছে । মেসির উচিৎ হবে একটা সংবাদসম্মেলন ডেকে সবাইকে বলা যে আমি কোথাও যাবো না। কারণ এখানে আমার অনেক স্মৃতি।’

বার্সেলোনার হয়ে গত ১৬ বছরের ক্যারিয়ারে মোট ৩৪টি শিরোপা জিতেছেন মেসি। যদিও শেষ মৌসুমে বার্সেলোনার সাফল্য ছিল শূন্যের খাতায়। জেতেনি একটা শিরোপাও। এমনকি চ্যাম্পিয়নস লিগে স্মরণকালের সবচেয়ে বাজে হারের শিকারও হয়েছে কাতালান ক্লাবটি। দলের এমন বিপর্যস্ত সময়ে মেসির চলে যাওয়া একদম উচিত নয় জানিয়ে আগুইরি আরও যোগ করেন, ‘মেসি তখনই যাচ্ছে যখন বার্সার নৌকা ডুবতে বসেছে। এই মুহূর্তে তার ক্লাব ছাড়া মোটেও উচিত হবে না।’

Leave a Reply

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

%d bloggers like this: