আমাদের আবেগ ও ভালবাসা

পৃথিবীর বেশির ভাগ বড় ও ভালো কাজ হয়েছে গভীর আবেগের জায়গা থেকে। আমার কাছে যা মনে হয় তা হলো আমরা সবাই আবেগী, এবং প্রত্যেকে আবেগ এর অন্তর্ভুক্ত। কেউ তার সঠিক প্রকাশ ঘটাতে পারে আর কেউ পারে না।

জাতি হিসেবে আমরা খুব আবেগী জাতি। আমি কখনই এই আবেগকে খারাপ চোখে দেখিনা। এই আবেগের জন্যেই বায়ান্নতেআমরা বাংলা ভাষা প্রতিষ্টা করতে পেরেছি। এই আবেগের জন্যেই আমরা একাত্তরে স্বাধীনতা পেয়েছি। বঙ্গবন্ধু একাত্তরেরআজকের এই দিনে যে জ্বালাময়ী ভাষন দিয়েছিলেন, তাতে আমরা সবাই সাড়া দিয়ে একত্রিত হয়েছিলাম। কেন? আমাদেরআবেগ আছে বলেই। তিনি বলেছিলেন, “যার যা কিছু আছে তাই নিয়েই শত্রুর মোকাবেলা করতে হবে”। এবং আমরামোকাবেলা করেছিলাম। আমাদের দেশপ্রেমটা এই আবেগ থেকেই এসেছে।

আমাদের কিছু কিছু সম্পর্কগুলো সত্যিই মধুর! এসব সম্পর্কের জন্যেই হয়ত আমরা বাংলাদেশিরা পৃথিবীর সবচেয়ে সুখী মানুষ।আমাদের এখানে বুড়ো ছেলেটাকে মা থ্যাবড়াতে থ্যাবড়াতে বলেন, যা মাথার চুল বড় হয়েছে, কেটে আয়। ছোট করে কাটবি! নিগ্রো কাটিং দিয়ে আসলেও মা বলেন, চুল তো সব বড়ই থেকে গেল!

যে মেয়েটা একা একা রাতে ঘুমাতে ভয় পেত! সে মেয়েটাই একা একা ব্যাগ গুছায়। চোখের পানি মুছে বাসা থেকে বের হয়। এইবের হওয়া অন্য রকম বের হওয়া! এক সময় প্রিয় মানুষটার সামনে এসে দাঁড়ায়। কান্নাটাকে লুকিয়ে ঠোঁটের কোণে হাসি ফুটিয়েবলে “চলে এসেছি! খুশি?”

স্বামী অসুস্থ। এক পা অচল। স্ত্রী কাঁধে নিয়ে হাসপাতালের এপাশ থেকে ওপাশের বারান্দায় যায়। হয়ত বেঞ্চিতে বসে থাকেদুজন। স্ত্রীর ভেতর বিন্দুমাত্র কষ্ট বোধ হয় না। শুধু মনে মনে বলেন, “আল্লাহ লোকটা যেন ভাল হয়ে যায়। আমার জীবনেরবিনিময়ে হলেও!”

একজন মধ্যবিত্ত বাবা নিজের ৪ বছরের পুরনো জুতা পড়ে থাকেন। ছেলেটাকে নতুন জুতা, প্যান্ট, টাই কিনে দেন। ছেলে যখনএগুলো পড়বে তাকে সাহেবের মত দেখাবে বাবা ভুলে যান পুরনো সেই জুতার কথা।

স্কুল জীবনের বন্ধুটা হঠাৎ মারা গেলে প্রবাসে বসে মধ্যবয়স্ক মানুষটা বাচ্চাদের মতন হাউ মাউ করে কাঁদতে থাকেন।

ক্রিকেট খেলায় দেশ জিতে গেলে বৃদ্ধ লোকটাও যুবকের মত দেশ বিজয়ের ভঙ্গিতে হুংকার ছাড়েন।দেশের ক্রিকেটারের সন্তানজন্ম হলেও প্রার্থনার স্ট্যাটাসে ভেসে যায় আমাদের হোম পেজ এগুলো আমাদের আবেগ, আমাদের ভালোবাসা আবেগ ছিল বলেই লুঙ্গি পড়ে খালি হাতে ছেলেটা যুদ্ধে গেল। আবেগ ছিল বলেই ভালোবাসা মাখা হাত দিয়ে একজন মা মুড়িমাখিয়ে দিয়েছিল মুক্তিযোদ্ধাদের! আবেগ ছিল বলেই বুকে বোমা বেঁধে ঝাঁপিয়ে পড়েছিল শহীদ! আবেগই আমাদের ভালোবাসা, প্রেম, আমাদের শক্তি।

20181210_131841

লেখক: আবু জাফর শিহাব ,এল এল বি

Leave a Reply

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

%d bloggers like this: