‘শুধু বাইক চালানো দেখে সবাই আমার চরিত্রের সনদ দিয়ে দিল?’

নতুন কিছু দেখলে সবাই হুমড়ে পড়বে। ভাল খারাপ সবই বলবে৷

আমি ফারহানা আফরোজ বর্তমান ফেসবুকে খুব ভাইরাল হচ্ছে আমাকে নিয়ে। কিন্তু আমি কি বলেছি আমাকে ভাইরাল কর? আমি নিজে বাইক চালাই। ঢাকাতে থাকি, অহরহ ছেলেরা হলুদে বাইক নিয়ে এন্ট্রি দিচ্ছে ও মেয়েরা নেচে। আমি মেয়ে হয়ে বাইক চালাতে পারি। তাই ভাবলাম বাইক চালিয়েই এন্ট্রি দি।

এখন করোনাকালীন সময়ে বিয়ের প্রোগ্রাম করতে থানা থেকে অনুমতির প্রয়োজন হয়। আমার ক্ষেত্রেও তার ভিন্নতা ছিল না। সকল অনুমতি নিয়েই আমার হলুদ ও বিয়ের প্রোগাম। সবই ঠিক থাকত। এত কথাও হত না, যদি বাইক নিয়ে পার্লার থেকে প্রোগ্রামে না যেতাম।

কথা হল। ভাল, খারাপ সব হল। আমার ছবি আমার থেকে অনুমতি না নিয়ে গ্রুপে গ্রুপে বাজে পোস্ট করা হচ্ছে। আজ মেয়ে হয়ে বাইক চালিয়ে এন্ট্রি, তাই? আজ বাংলাদেশে কত মেয়ে বাইকার! তাহলে আমি যদি হলুদে বাইক চালিয়ে ঢুকি, কিছু মানুষের এত সমস্যা হচ্ছে যে গ্রুপে বাজে পোস্ট করা হচ্ছে। ইউটিউবেও ট্রোল হচ্ছে, এগুলো কি মেনে নেওয়া যায়?

আমার সাথে এটা হয়েছে। আমি চাই না এরকম হেরাসমেন্ট আর কোন মেয়ে বা লেডি বাইকারের সাথে হোক। এমনিতেই সমাজে আমরা যারা বাইক চালাই তাদের অনেকের কথার সাথে লড়াই করতে হয়। ধীরে ধীরে এগুলো কমার কথা। তা না, বেড়ে ই চলেছে। আমাদের সাথে এই অত্যাচার আর কতদিন দেখব জানি না।

যেখানে আমাদের প্রধানমন্ত্রী মেয়ে, স্পিকার মেয়ে, দেশ মেয়েরা চালায় সেখানে একটা মেয়ে যে বাইক চালানো জানে, তার বাইক চালানো কেন সমাজ ভাল ভাবে নিচ্ছে না? নিচ্ছে না, মানলাম। কিন্তু তার চরিত্র নিয়ে কথা আজে বাজে কথা কীভাবে সহ্য হয়? আমারও পরিবার আছে। বর আছে, শ্বশুরবাড়ি আছে।

এভাবে একটা মেয়ের চরিত্র নিয়ে কথা বলতে হবে? শুধু বাইক চালানো ছবি দেখে সবাই আমার চরিত্রের সনদ দিয়ে দিল?
এগুলির বিচার কি হবে?

(ফেসবুক থেকে সংক্ষেপিত)

Leave a Reply

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

%d bloggers like this: