Advertisements

করোনা আক্রান্তে শীর্ষে থাকা গর্বের বিষয়: ট্রাম্প

নভেল করোনাভারাসের মরণ আঘাতে সবচেয়ে বেশি আক্রান্ত ও মৃত্যু যুক্তরাষ্ট্রে। বিশ্বের সবচেয়ে বেশি করোনা রোগী শনাক্ত হওয়ার বিষয়টি যুক্তরাষ্ট্রের জন্য ‘সম্মানের বিষয়’ বলে মনে করছেন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। মঙ্গলবার (১৯ মে) হোয়াইট হাউসের ইস্ট রুমে মন্ত্রিসভার প্রথম বৈঠক চলাকালে সাংবাদিকদের এ কথা বলেন ট্রাম্প। তিনি বলেন, ‘প্রসঙ্গক্রমে যখন আপনারা বলেন, আক্রান্তের সংখ্যায় আমরা শীর্ষে আছি, এর কারণ হল, অন্য যে কারো চেয়ে বেশি পরীক্ষা করছি আমরা।’

প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প আরও বলেন, ‘আমাদের আক্রান্তের সংখ্যা অনেক হলেও আমি এটিকে খারাপ হিসেবে দেখি না, আমি এটিকে বিশেষ সম্মানের সঙ্গে দেখি, একটি ভালো জিনিস হিসেবে দেখি, কারণ এর অর্থ আমাদের পরীক্ষা অনেক ভালো।’ বিশ্বব্যাপী করোনায় আক্রান্ত ও প্রাণহানির তথ্য প্রকাশ করে আসা জনস হপকিনস বিশ্ববিদ্যালয়ের পরিসংখ্যান অনুযায়ী, যুক্তরাষ্ট্রে এখন পর্যন্ত করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন ১৫ লাখের বেশি মানুষ। আর মারা গেছেন ৯২ হাজার। অন্য যেকোনো দেশের তুলনায় আক্রান্ত ও প্রাণহানিতে অনেক বেশি এগিয়ে থেকে যুক্তরাষ্ট্রই রয়েছে তালিকার শীর্ষে। ৩ লাখ আক্রান্ত নিয়ে এ তালিকায় দ্বিতীয় অবস্থানে রয়েছে রাশিয়া।

যুক্তরাষ্ট্রের রোগ নিয়ন্ত্রণ কেন্দ্রের তথ্য অনুযায়ী, মঙ্গলবার পর্যন্ত সারাদেশে ১ কোটি ২৬ লাখ মানুষের করোনা পরীক্ষা করা হয়েছে। প্রতিদিন দেশটি ৩ থেকে ৪ লাখ মানুষের করোনা পরীক্ষা চালাচ্ছে। তবে রোগ সংক্রমণ আর প্রাণহানিতে এক নম্বরে থাকা নিয়ে প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের গর্বের বিষয়টিকে ভালোভাবে নিচ্ছেন না সমালোচকরা। বিরোধীদল ডেমোক্রেটিক পার্টির ন্যাশনাল কমিটি এক টুইটে বলেছে, দেশে ১৫ লাখ মানুষের আক্রান্ত হওয়া রিপাবলিকান প্রেসিডেন্টের নেতৃত্বের ব্যর্থতার পরিচয় বহন করে। তাছাড়া করোনা পরীক্ষার ক্ষেত্রে যুক্তরাষ্ট্রই যে এক নম্বরে, তাও মিথ্যা দাবি বলে মনে করছেন বিশ্লেষকরা। কারণ অক্সফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের বৈশ্বিক তথ্য অনুযায়ী, করোনার পরীক্ষার দিক থেকে ১৬ নম্বরে রয়েছে যুক্তরাষ্ট্র। প্রতি এক হাজার জনে পরীক্ষার ক্ষেত্রে রাশিয়া, কানাডা, নিউজিল্যান্ড ও আইসল্যান্ডের চেয়েও পিছিয়ে আছে যুক্তরাষ্ট্র।

Advertisements

Leave a Reply

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

%d bloggers like this: