Advertisements

বাউল রনেশ ঠাকুরের ঘরে আগুন দেয়ায় সংহতি সংস্কৃতি সংসদের নিন্দা

 সুনামগঞ্জে বাউল রনেশ ঠাকুরের সর্বস্ব জ্বালিয়ে দেওয়া দেশের অসাম্প্রদায়িক গণতান্ত্রিক চেতনার উপর হামলার সামিল মন্তব্য করে অনতিবিলম্বে চিহ্নিত দুর্বৃত্তদের গ্রেফতার ও শাস্তির দাবি করেছে সংহতি সংস্কৃতি সংসদ।

সংহতি সংস্কৃতি সংসদ এর সভাপতি ইফতেখার আহমেদ বাবু এবং সাধারণ সম্পাদক এ্যাপোলো জামালী আজ গণমাধ্যমে প্রদত্ত এক বিবৃতিতে সুনামগঞ্জ শাহ আব্দুল করিমের শিষ্য বাউল রনেশ ঠাকুর এর চার দশকের বইপত্র, বাদ্যযন্ত্রসহ সব পুড়িয়ে দেওয়ার ঘটনায় তীব্র নিন্দা ও ক্ষোভ জানিয়েছেন।

বিবৃতিতে নেতৃবৃন্দ বলেন, বাউল গান আমাদের দেশের হাজার বছরের ঐতিহ্যবাহী গণমানুষের সংস্কৃতির অন্যতম বাহক। প্রাণের গান, জনমানুষের মনের গান এই বাউল গান। এই গানের ধারক-বাহক যারা তারা বাংলার অসাম্প্রদায়িক সংস্কৃতির অপরিহার্য অংশ। এই ধরনের সাধক ও সংস্কৃতি চর্চাকারী ব্যক্তিদের উপর হামলা মূলত দেশের অসাম্প্রদায়িক, গণসংস্কৃতির উপর হামলার সামিল।

নেতৃবৃন্দ আরো বলেন যে বা যারা এই নৃশংস কাপুরুষোচিত হামলা করেছে তাদের এবং তাদের মদদদাতাদের চিহ্নিত করে গ্রেফতার করতে হবে। দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দিতে হবে। দেশের এই করোনাকালীন দুর্যোগের সময় যেসকল দুস্কৃতিকারী ও সন্ত্রাসীরা এই ধরনের ন্যাক্কারজনক হামলা করতে পারে তারা নিছক কোন ছিচকে দুস্কৃতিকারী নয়। এটা একটা চেতনা ও সংস্কৃতির উপর পরিকল্পিত হামলা যা আমাদের মহান মুক্তিযুদ্ধের চেতনা বিরোধী।

নেতৃবৃন্দ বাউল রনেশ ঠাকুরকে পুনমর্যাদায় পুনর্বাসন, যথাযথ ক্ষতিপূরণ এবং এই গণসংস্কৃতি রক্ষায় উপযুক্ত পদক্ষেপ গ্রহণ করার জন্য সরকারের প্রতি অনুরোধ জানান। পাশাপাশি দেশের সচেতন মানুষদেরকে এর প্রতিবাদ-প্রতিরোধ গড়ে তোলার আহ্বান জানান।

শুদ্ধস্বর/বিএস

 

 

Advertisements

Leave a Reply

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

%d bloggers like this: