Advertisements

দেড় সপ্তাহ ধরে নিয়মিত হাইড্রক্সিক্লোরোকুইন খাচ্ছেন ট্রাম্প

 

করোনা ভাইরাসের মৃত্যুমিছিল রুখতে গোটা বিশ্বে কদর বাড়ছে হাইড্রক্সিক্লোরোকুইনের (Hydroxychloroquine)। এর নেপথ্যে অবশ্য অনেকটাই হাত মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের (Donald Trump)। রাষ্ট্রনেতাদের মধ্যে তিনিই প্রথম জনসমক্ষে দাবি করেন, হাইড্রক্সিক্লোরোকুইন করোনা মোকাবিলায় কার্যকর হতে পারে। তিনিই প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির কাছে দাবি জানিয়ে এই ওষুধ ভারত থেকে আমেরকিয়ায় আমদানি করেন। এবার ট্রাম্প বলছেন, করোনা সংক্রমণের ঝুঁকি কমাতে তিনি প্রায় দেড় সপ্তাহ ধরে নিয়মিত হাইড্রক্সিক্লোরোকুইন খাচ্ছেন তিনি।

মার্কিন মুলুকে করোনা সংক্রমণ মারাত্মক রূপ নিয়েছে। অ্যামেরিকার লক্ষ লক্ষ মানুষ আজ এই রোগে আক্রান্ত। বাদ পড়েনি ট্রাম্পের সরকারি বাসভবন হোয়াইট হাউসও। সেখানকার অন্তত ২ জন কর্মী এখনও পর্যন্ত করোনা সংক্রমিত হয়েছেন বলে খবর। এই পরিস্থিতিতে প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের স্বাস্থ্য নিয়েও উদ্বিগ্ন হোয়াইট হাউস। যদিও তাঁকে কোনও চিকিৎসক হাইড্রক্সিক্লোরোকুইন খাওয়ার পরামর্শ দেননি। তিনি নিজের উদ্যোগেই নিয়মিত এই ওষুধ খাচ্ছেন। যা বিপজ্জনক হতে পারে। সোমবার ট্রাম্প জানান, “আমি এই ওষুধটা নিচ্ছি। কারণ আমার মনে হয় এটা কাজের। এর সম্পর্কে অনেক ভাল কথা শুনেছি। আমি প্রায় দেড় সপ্তাহ ওষুধটা খাচ্ছি।” হাইড্রক্সিক্লোরোকুইনের পার্শ্বপ্রতিক্রিয়ার তত্ত্বও উড়িয়ে দিয়েছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট। তিনি বলছেন, প্রায় দশদিন ওষুধটা খাওয়ার পরও পুরোপুরি সুস্থ আছেন তিনি।

করোনা ভাইরাসের মোকাবিলায় হাইড্রক্সিক্লোরোকুইন (যা আদতে ম্যালেরিয়ার ওষুধ) কতটা কার্যকর তা নিয়ে দ্বন্দ্ব রয়েছে চিকিৎসক মহলে। প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের স্বাস্থ্য উপদেষ্টারাও এই ওষুধের প্রয়োগ ও কার্যকারিতা নিয়ে সংশয় প্রকাশ করেছেন। তাছাড়া এর মারাত্মক পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া আছে। কিন্তু এসব উপেক্ষা করেই মহার্ঘ এই ওষুধ সেবন করছেন ট্রাম্প। উল্লেখ্য, গত নভেম্বরে শেষবার স্বাস্থ্য পরীক্ষা হয়েছিল মার্কিন প্রেসিডেন্টের। এদিকে হোয়াইট হাউসের ওয়েস্ট উইংয়ের কর্মীদের নিয়মিত স্বাস্থ্য পরীক্ষা করা হচ্ছে। স্বাস্থ্য পরীক্ষা না করিয়ে কাউকে প্রেসিডেন্টের কাছে যেতে দেওয়া হচ্ছে না। সুত্র , সংবাদ প্রতিদিন ।

Advertisements

Leave a Reply

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

%d bloggers like this: