Sunday April11,2021

বরিশাল বাসদের উদ্যোগে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত রোগী বহনে ‘বিনামূল্যে অ্যাম্বুলেন্স সার্ভিস

বরিশালে করোনা আক্রান্ত রোগীসহ বিভিন্ন ধরণের জরুরি রোগী পরিবহনের জন্য ফ্রি অ্যাম্বুলেন্স সার্ভিস চালু করেছে বাংলাদেশ সমাজতান্ত্রিক দল- বাসদ।

বৃহস্পতিবার বেলা সাড়ে ১১টায় নগরীর সদর রোডের অশ্বিনী কুমার হল চত্বরে ফ্রি অ্যাম্বুলেন্স সার্ভিসের উদ্বোধন করা হয়। এ সময় জেলা বাসদের আহ্বায়ক ইমরান হাবিব রুমন ও সদস্য সচিব ডা: মনিষা চক্রবর্ত্তীসহ অন্যান্যরা উপস্থিত ছিলেন।

ফ্রি অ্যাম্বুলেন্স সার্ভিস চালুর বিষয়ে ডা: মনিষা চক্রবর্ত্তী বলেন, করোনাসহ যেকোন দুর্যোগে জনগণের পাশে আছেন এবং থাকবেন। বর্তমান প্রেক্ষিতে করোনা রোগীরা যেন দ্রুত সেবা পায় এবং এমন সংকটকালীন সময়ে যাতে অন্যান্য মূমূর্ষ রোগীদের দ্রুত হাসপাতালে পৌঁছানো সম্ভব হয় সে জন্য এই ফ্রি অ্যাম্বুলেন্সের ব্যবস্থা করা হয়েছে। ব্যাটারি চালিত ১০টি হলুদ অটোরিক্সা ফ্রি এ্যাম্বুলেন্স সার্ভিসে ব্যবহার হচ্ছে। বাসদ’র কর্মীদের প্রশিক্ষণ দিয়ে পার্সোনাল প্রকেটশন ইকুইপমমেন্ট (পিপিই) দিয়ে এই ফ্রি অ্যাম্বুলেন্স সার্ভিসের ব্যবস্থা করা হয়েছে বলে জানান ডা: মনিষা চক্রবর্ত্তী।

জেলা বাসদের আহ্বায়ক প্রকৌশলী ইমরান হাবিব রুমন বলেন, প্রতিটি ইজিবাইকে একজন চালক ও রোগীর পাশে থাকবেন একজন স্বেচ্ছাসেবী। চালক ও স্বেচ্ছাসেবী নিজেদের নিরাপত্তায় পিপিই পরিহিত থাকবেন। স্বেচ্ছাসেবী হিসাবে কাজ করা এ ১০ জনকে মেডিসিন বিশেষজ্ঞ প্রফেসর ডা. এইচ এন সরকার প্রাথমিক প্রশিক্ষণ দিয়েছেন কিভাবে রোগী পরিবহন করতে হবে।

রোগীবহনকারী ইজিবাইক অ্যাম্বুলেন্স চালক খলিলুর রহমান বলেন, একজন ব্যক্তি করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হলে রোগীর পুরো পরিবারটি অসহায় হয়ে পড়ে। তাদের থেকে সবাই দূরে থাকে। প্রয়োজনীয় সহায়তা তারা পাননা। বাসদের আহ্বানে দুঃসময়ে অসহায় মানুষের পাশে দাড়ানোর জন্যই স্বেচ্ছাসেবী হিসেবে যোগ দিয়েছি।

সম্পূর্ণ বিনা খরচে রোগী বহন করা হবে এ বিশেষ অ্যাম্বুলেন্সগুলোতে। ইজিবাইকগুলোতে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত ও লক্ষণ থাকা রোগী বহনে বিশেষ ব্যবস্থা করা হয়েছে। রোগী বহনের সময় চালক ও আশেপাশের কেউ যাতে সংক্রমিত না হয় সেভাবে ইজিবাইকগুলোকে সংস্কার করা হয়েছে। পাশাপাশি রোগী বহনে বাসদের ১০জন কর্মী স্বেচ্ছাসেবক হিসেবে কাজ করবেন।

শুদ্ধস্বর/রাকিবুল ইসলাম , প্যারিস থেকে ।