Sunday April11,2021

পাঁচ টাকা দিয়ে একটি টিকিট কিনলেই পাওয়া যাবে ৮টি পণ্য। এর মধ্যে রয়েছে পাঁচ কেজি চাল, এক কেজি তেল, এক কেজি পেঁয়াজ, দুই কেজি আলু, এক কেজি ডাল, একটি মাস্ক, একটি সাবান ও এক প্যাকেট লবণ।

ঝালকাঠির একটি সমাজকল্যাণ সংস্থা করোনা সংক্রমণ মোকাবেলায় কর্মহীন হয়ে যাওয়া মানুষকে খাদ্যসামগ্রী দিতে এ ধরণের উদ্যোগ নিয়েছে। এমনকি সেলফোনে কেউ নাম পরিচয় দিয়ে কল করলেও পৌছে দেওয়া হচ্ছে এসব খাদ্যসামগ্রী। বিনিময়ে তাকে দিতে হবে মাত্র পাঁচ টাকা। অসহায় মানুষ গর্বের সাথে পণ্যগুলো নিতে পারবেন। এতে তাঁরা কেউ ভাববে না, যে দান গ্রহণ করছে, কিংবা অনুগ্রহ নিয়েছে। শহরের কৃষ্ণকাঠি এলাকায় ‘স্বপ্নপূরণ সমাজকল্যাণ সংস্থার’ কার্যালয়েও পাওয়া যাচ্ছে এ পণ্য।

শুক্রবার থেকে সংস্থার সভাপতি রিয়াজ খান অশ্রু কর্মহীন মানুষের মাঝে পণ্যগুলো তুলে দিচ্ছেন। যারা এ পণ্য নিচ্ছেন, তাদের সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখার পরামর্শ দেন তিনি। অতিপ্রয়োজন ছাড়া ঘর থেকে কাউকে বের না হওয়ার কথা জানিয়ে দেন দরিদ্র মানুষগুলোকে। প্রথম দিনে তিনি একশ’ প্যাকেট তৈরি করেছেন। এজন্য তাকে সহায়তা করেছেন, তাঁর বন্ধু, আত্মীয়-স্বজন ও পরিচিতজনরা। তাদের প্রতি কৃজ্ঞতা প্রকাশ করেছেন অশ্রু।

স্বপ্নপূরণ সামজকল্যাণ সংস্থার সভাপতি রিয়াজ খান অশ্রু জানান, শুক্রবার থেকে প্রত্যেক ক্রেতার বাসায় (হোম ডেলিভারি) অথবা টিকিট জমা দিয়ে তাদের পণ্য নিতে পারবেন। অবশ্যই নির্দিষ্ট সামাজিক দূরত্ব (৩ফুট দূরত্ব) বজায় রেখে তাদের পণ্য তুলে দেওয়া হয়। সামাজিক এ কর্মকান্ডে যুক্ত রয়েছেন সংস্থার সদস্য সুমন সমাদ্দার, হাসানুজ্জামান হিরা, জামাল, মিজান, রানা, এসএম সিরাজুল ইসলাম মোল্লা, নজরুল ইসলাম নান্নু, নুরুল ইসলাম, আল আমিনসহ সকল সদস্যবৃন্দ।

সার্বক্ষণিক পরামর্শ ও সহযোগিতা করেছেন সংস্থার উপদেষ্টা ঝালকাঠি সরকারি উচ্চ বিদ্যালয়ের অবসরপ্রাপ্ত শিক্ষক বঙ্কিম চন্দ্র সমাদ্দার, সদর উপজেলা পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান মো. সুলতান হোসেন খান ও সৈয়দ রাজ্জাক আলী সেলিম, জেলা আইনজীবী সমিতির সাবেক সাধারণ সম্পাদক মল্লিক মুহাম্মদ নাসির উদ্দিন কবীর, বিশিষ্ট ব্যবসায়ী জানে আলম জনি, শওকত হোসেন মিলা এবং আমিনুল ইসলাম লিটন তালুকদার।