Sunday April11,2021

বেড়িবাঁধ ভেঙ্গে চট্টগ্রামের বিভিন্ন এলাকা প্লাবিত হয়েছে। ভেসে গেছে ঘর-বাড়ি, চিংড়ি ঘের ও ফসলের জমি। ঘূর্ণিঝড় ‘ফণী’র প্রভাবে ইপিজেড থানাধীন আকমল আলী রোড এলাকা, আনোয়ারার গহিরা, সন্দ্বীপ সহ নিম্নাঞ্চলে লোকালয়ে ঢুকে পড়েছে পানি।

শনিবার (৪ মে) দুপুর ১২টার দিকে জোয়ারের পানি লোকালয়ে প্রবেশ করে।

সামুদ্রিক পানি থেকে হালিশহর, পতেঙ্গা থেকে ফৌজদারহাট পর্যন্ত উপকূলীয় এলাকাকে রক্ষা করতে ৩০ ফুট উচ্চতা ও একশ ফুট চওড়া বাঁধ নির্মিত হচ্ছে। কিন্তু কাজ শেষ না হওয়ায় নির্মাণাধীন বাঁধ ভেঙ্গে লোকালয়ে পানি ঢুকছে।

এদিকে বেড়িবাঁধ ভেঙে আনোয়ারার রায়পুর ইউনিয়নের দক্ষিণ গহিরা গ্রামও পানিতে তলিয়ে গেছে।

ঘূর্ণিঝড় ফণী দুর্বল হয়ে স্থল গভীর নিম্নচাপে পরিণত হয়েছে। ফরিদপুর-ঢাকা অঞ্চল এবং এর পার্শ্ববর্তী এলাকায় অবস্থানরত ঘূর্ণিঝড় ফণী উত্তরপূর্ব দিকে অগ্রসর হচ্ছে।

আবহাওয়া অধিদফতর জানিয়েছে, ঘূর্ণিঝড় ফণী দুর্বল হয়ে স্থল গভীর নিম্নচাপ আকারে শনিবার দুপুর ১২টার দিকে পাবনা-টাঙ্গাইল-ময়মনসিংহ অঞ্চল এবং এর পার্শ্ববর্তী এলাকায় অবস্থান করছিল। এটি আরও উত্তর-উত্তরপূর্ব দিকে অগ্রসর হতে পারে। নিম্নচাপটির প্রভাবে দেশের আকাশ মেঘাচ্ছন্ন রয়েছে এবং দেশের অনেক স্থানে অস্থায়ীভাবে দমকা-ঝড়ো হাওয়াসহ বৃষ্টি-বজ্রবৃষ্টি অব্যাহত রয়েছে।

শুদ্ধস্বর/এন.হাসান