Sunday April18,2021

একে একে জীবনের ১০৯টি বসন্ত পার করেছেন৷ বয়সের ভারে ন্যুব্জ তিনি৷ তবে গণতান্ত্রিক অধিকার প্রয়োগ করতে ভোলেননি৷ নিজের পছন্দের জনপ্রতিনিধিকে বেছে নিতে সকাল সকাল বুথে গিয়ে সপরিবারে ভোট দিলেন কাঁকসার হারাধন সাহা৷

কাঁকসার সরস্বতীগঞ্জের মলানদিঘির বাসিন্দা হারাধন সাহা। জানাচ্ছেন, ব্রিটিশ আমল থেকে ভোট দিচ্ছেন তিনি৷ তখন বয়স কুড়ির গণ্ডি পেরিয়েছে৷ সেই প্রথম লাইনে দাঁড়িয়ে আঙুলে কালি লাগিয়ে ভোট দেওয়া তাঁর৷ ফরিদপুরের বালিজুরি গ্রামে প্রথম ভোটটি তিনি দিয়েছিলেন৷ এখন আর সেভাবে কোনও কথা মনে রাখতে পারেন না৷ তাই আগে কাকে ভোট দিয়েছিলেন তিনি, তাও এখন আর মনে নেই শতবর্ষ পার করা হারাধন সাহার৷ একবারও ভোট না দিয়ে থাকেননি৷ সময়ের সঙ্গে বেড়েছে বয়স৷ শারীরিক অসুস্থতা জানান দেয়, শতায়ুর গণ্ডি পেরিয়েছেন তিনি৷ বয়স যাই হোক না কেন, অসুস্থতা যতই থাকুক না কেন, গণতন্ত্রের উৎসব তো আর রোজ হয় না৷ তাই তো পাঁচ বছর অন্তর গণতন্ত্রের উৎসবে শামিল হতে ভোলেননি শতাব্দী পেরোনো এই মানুষটি। পরিবারের প্রায় সকলকে সঙ্গে দিয়ে ভোটাধিকার প্রয়োগ করেন তিনি৷ হারাধন সাহা বলেন, ‘‘ভোট যখন থেকে শুরু হয়েছে তখন থেকেই ভোট দিচ্ছি আমি। আজ ভোট দিতে একটু সমস্যা হয়েছিল৷ অবশ্য পরে ঠিকই দিলাম।’’

সুত্র, সংবাদ প্রতিদিন