Friday April16,2021

পুনর্জন্ম
– শামসুদ্দিন পেয়ারা

ঐ দেখ মহাবীর শুয়ে আছে মৃত্তিকা-শয়ানে
নিরব নিস্তব্ধ স্থির ভেঙে-পড়া পরিত্যক্ত
পৃথিবীর সবচেয়ে জনহীন ভুতুড়ে ময়দানে
কিছুটা সহজবোধ্য কিছুটা অব্যক্ত
বিশাল ভাস্কর্যের ন্যায়,
এলায়িত সবুজ ঘাসের গালিচায়।

বিশাল পর্বতসম দেহখানি দিগন্তের কাছে
মৃত এক তিমির ফুলে ওঠা দেহের মতো অনাদরে পড়ে আছে,
যেন কালবৈশাখির ঝড়ে ছারখার
দূর থেকে উড়ে আসা ছিন্নভিন্ন কুঁড়েঘরখানি কার,
নিমীলিত দুই চোখে পৃথিবীর সব ঘুম জমে আছে যেন
পরাজিত চেহারায় বীরত্বের চিহ্নমাত্র নাই।

সে এখন মৃতের চেয়েও মৃত
যে কী না জীবিত বেলায় ছিল
জীবিতের চেয়েও জীবিত।

মহাবীর শুয়ে আছে দেখ
শূন্য হাতের মুঠো, বস্ত্রহীন, নবজাতকের ন্যায়
অপাপবিদ্ধ সারাদেহ
রক্তে মাখামাখি,
যেন এখনি উঠবে কেঁদে চিৎকার করে –
“আমাকে এ পৃথিবীতে পুনশ্চ জন্ম দিয়ো কেহ”।