Friday March5,2021

শুদ্ধস্বর রিপোর্ট :

সোমবার একটি আন্তর্জাতিক সংবাদ মাধ্যমে ড. কামাল হোসেনের বক্তব্যের বরাত দিয়ে প্রকাশিত সংবাদে বলা হয়, শেখ হাসিনার অধীনে নির্বাচনে যেতে রাজি আছেন ড. কামাল হোসেন। আজকের বৈঠকে বিষয়টি নিয়ে আলোচনা হয়। আ স ম আবদুর রব বলেন, পৃথিবীর কিছু দেশে দলীয় সরকারের অধীনে নির্বাচনে যাওয়ার নজির আছে, তবে ওই সরকারগুলো জনগণের ভোটে নির্বাচিত এবং ওখানে গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠিত। ওইসব দেশে নির্বাচন কমিশন আজ্ঞাবহ নয়। কিন্তু শেখ হাসিনার নেতৃত্বাধীন সরকার জনগণের ভোটে নির্বাচিত নয়। সেকারণে এই সরকারের প্রতি কারো আস্থা নেই এবং এই সরকারের অধীনে নির্বাচনে যাওয়ার কোন সুযোগ নেই। তিনি বলেন, জনগণকে ভোট দেয়ার সুযোগ দিতে হলে নির্বাচনকালীন একটি নিরপেক্ষ সরকারের কোন বিকল্প নেই। জাতীয় ঐক্য প্রক্রিয়া ও যুক্তফ্রন্ট এর বিকল্প কিছু ভাবছে না। জেএসডি সভাপতি আরও বলেন, আগামী দিনে আন্দোলন-সংগ্রাম সহ নানা কর্মসূচী পালনের লক্ষ্যে লিয়াজো কমিটি গঠনের সিদ্ধান্ত নিয়েছে জাতীয় ঐক্য প্রক্রিয়া ও যুক্তফ্রন্ট। আজ সন্ধ্যায় মতিঝিলে অনুষ্ঠিত এক বৈঠকে এ সিদ্ধান্ত হয়।

‘জাতীয় ঐক্য প্রক্রিয়ার আহ্বায়ক, সংবিধান প্রণেতা ও বিশিষ্ট আইনজীবী ড. কামাল হোসেন শেখ হাসিনার নেতৃত্বাধীন সরকারের অধীনে নির্বাচনে যাওয়ার কথা বলেননি বলে জানিয়েছেন জেএসডির সভাপতি আ স ম আবদুর রব। সোমবার সন্ধ্যায় ঢাকার মতিঝিলে অনুষ্ঠিত জাতীয় ঐক্য প্রক্রিয়া ও যুক্তফ্রন্টের বৈঠক শেষে তিনি গণমাধ্যমকে এ কথা জানান।

বৈঠকের পর তিনি জানান, ভবিষ্যতে ঐক্যবদ্ধ নানা কর্মসূচী গ্রহণ করা হবে। কর্মসূচী গ্রহণ ও বাস্তবায়নের লক্ষ্যে একটি লিয়াজো কমিটি গঠনের সিদ্ধান্ত হয়। তবে এই কমিটিতে কারা থাকবেন, কার কি দায়িত্ব থাকবে সে বিষয়ে আজ কোন সিদ্ধান্ত হয়নি। আগামীকাল মঙ্গলবার বিকেলে আবারও বৈঠক হবে, সেই বৈঠকে বাকী সিদ্ধান্ত হবে।

এছাড়া আজকের বৈঠকে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন পাশের নিন্দা জানানো হয় বৈঠক থেকে। একইসঙ্গে এই আইন বাতিলের দাবিও জানানো হয় বলে জানান ডেএসডির সভাপতি আ স ম আবদুর রব। সুত্র:  মানবজমিন